নয়াদিল্লি: নাটক শেষে গ্রেফতার করা হল দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরমকে। আইএনএক্স মিডিয়া সংক্রান্ত মামলায় তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

বুধবার সন্ধেয় দিল্লিতে জোড় বাগের বাড়িতে পৌঁছে যায় সিবিআই। পাঁচিল টপকে সিবিআই অফিসারদের ঢুকতে দেখা গিয়েছে। এরপরই সেই বাড়িতে পৌঁছন ইডি আধিকারিকরা। কিছুক্ষণের মধ্যেই চিদম্বরমকে বাড়ির বাইরে বেরিয়ে আসতে দেখা যায়। তাঁকে গাড়িতে তুলে নেওয়া নেন আধিকারিকরা।

আগেই প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর বিরুদ্ধে লুকআউট নোটিশ জারি করে ইডি। দিল্লি হাইকোর্টের রায়ের পর থেকেই তিনি নিখোঁজ বলে অভিযোগ ওঠে। হাইকোর্টের রায়ের পরই চিদম্বরমের বাড়িতে হানা দেয় সিবিআই ও ইডি। কিন্তু সেই সময় বাড়িতে ছিলেন না চিদম্বরম। বুধবার সকালেও চিদম্বরমের বাড়িতে যায় সিবিআই দল।

ইডির আধিকারিকেরা আগেই জানান, যে ওঁকে পেলেই গ্রেফতার করা হবে। মঙ্গলবার চিদম্বরমের বাড়িতে গিয়ে নোটিশ দেয় সিবিআই। দু’ঘণ্টার মধ্যে চিদম্বরমকে সিবিআই দফতরে হাজিরার নির্দেশ দেয় সিবিআই। মঙ্গলবারই সন্ধে ৬টা ৪৫ মিনিট নাগাদ প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর বাড়িত যায় সিবিআই দল। এরপরই তাঁর বাসভবনে যান ইডি আধিকারিকরা।

আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় চিদম্বরমের আগাম জামিনের মামলা যায় প্রধান বিচারপতির বেঞ্চে। আগাম জামিনের আবেদন নিয়ে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে যেতে হবে চিদম্বরমকে, এমনটাই জানা গিয়েছে।

আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় চিদম্বরকে ‘অন্যতম মূল চক্রী’ বলে বর্ণনা করেছে হাইকোর্ট। এদিকে, আইএনএক্স মিডিয়ায় দুর্নীতি ও আর্থিক তছরুপ মামলায় তাঁর আগাম জামিনের আবেদন খারিজ করে দেওয়ার পর সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন পি চিদাম্বরম। দিল্লি হাইকোর্টের রায় বাতিলের আবেদন জানিয়ে তাঁর হয়ে শীর্ষ আদালতে আবেদন করেন কংগ্রেস নেতা তথা আইনজীবী কপিল সিব্বল।