বেঙ্গালুরু: সুনীল ছেত্রীর গোলে শনিবাসরীয় আইএসএলে দাক্ষিণাত্য ডার্বি জিতে নিল বেঙ্গালুরু এফসি। উত্তেজক ম্যাচে দু’দলের মধ্যে পার্থক্য গড়ে দিল দ্বিতীয়ার্ধে ভারত অধিনায়কের গোল। পঞ্চম ম্যাচে দ্বিতীয় জয় নিয়ে লিগ টেবিলে দ্বিতীয়স্থানে উঠে এল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। অন্যদিকে প্রথম ম্যাচে এটিকে’কে হারিয়ে সাড়া জাগিয়ে শুরু করলেও টুর্নামেন্টের পঞ্চম ম্যাচে এসেও দ্বিতীয় জয় অধরা রইল কেরালা ব্লাস্টার্সের।

কান্তিরাভায় এদিন অ্যাওয়ে ম্যাচে তেড়েফুঁড়ে খেলা শুরু করে ইয়েলো ব্রিগেড। প্রথমার্ধ জুড়ে বিক্ষিপ্ত আক্রমণ থেকে বেশ কিছু গোলের সুযোগও তৈরি করে দু’দল। যার মধ্যে প্রথম ইতিবাচক সুযোগ পেয়ে গিয়েছিল এলকো শ্যাটোরির কেরালা ব্লাস্টার্স। ওড়িশা এফসি’র বিরুদ্ধে ড্র করা একাদশে এদিন তিনটি পরিবর্তন করে দল সাজান ভারতীয় ফুটবল সার্কিটে এই পোড় খাওয়া কোচ। প্রথমার্ধে রাফায়েল মেসি বৌলি বক্সের মধ্যে বল সাজিয়ে দেন তারকা স্ট্রাইকার বার্থালোমিউ দিয়াজের জন্য। কিন্তু সেই বলে পা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হন নাইজইরিয়ান স্ট্রাইকার।

এরপর ৩০ মিনিটের মাথায় বেঙ্গালুরুর রাফায়েল অগাস্তোর গোল বাতিল করেন রেফারি। উদান্তা বল ধরে রিলিজ করার আগে সেটি বাইরে বেরিয়ে যাওয়ার কারণে লাইন্সম্যান ফ্ল্যাগ তুললেও রিপ্লেতে পরিষ্কার দেখা যায় বল কোনভাবেই অতিক্রম করেনি। প্রথমার্ধের বাঁশি বাজার মিনিট তিনেক আগে দলকে এগিয়ে দেওয়ার সুবর্ণ সুযোগটি হাতছাড়া করেল রাফায়েল মেসি নিজেই। প্রথমার্ধ গোলশূন্য থাকার পর ঘরের মাঠে দ্বিতীয়ার্ধে বাড়তি উদ্যমে শুরু করে ব্লুজ’রা।

এগিয়ে যেতেও বেশি সময় নেয়নি কার্লোস কুয়াদ্রাতের ছেলেরা। ৫৫ মিনিটে সেটপিসের ফসল কাজে লাগিয়ে দলকে এগিয়ে দেন সুনীল ছেত্রী। ডেলগাডোর কর্নার থেকে অসাধারণ হেডারে স্কোরলাইন ১-০ করেন তিনি। ৬৮ মিনিটে সমতায় ফেরার সুযোগ চলে আসে কেরালার কাছে। কিন্তু মেসির সাজানো বল থেকে রাহুলের শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এরপর বেঙ্গালুরুর কাছে সুযোগ এসেছিল ব্যবধান বাড়ানোর। কিন্তু কোনওপক্ষই আর কোনও গোল না করতে না পারায় সুনীলের গোলই ম্যাচে নির্ণায়ক হয়ে দাঁড়ায়।

অর্থাৎ, প্রথম তিন ম্যাচে জয় না পেলেও পঞ্চম ম্যাচে দ্বিতীয় জয় বেঙ্গালুরুকে পৌঁছে দিল লিগ টেবিলে দ্বিতীয়স্থানে। অন্যদিকে পাঁচ ম্যাচে ১টি জয়, ১টি ড্র ও ৩টি হার নিয়ে সপ্তমস্থানে কেরালা ব্লাস্টার্স। ঘরের মাঠে এফসি গোয়ার বিরুদ্ধে পরবর্তী ম্যাচে মুখোমুখি তাঁরা। অন্যদিকে বেঙ্গালুরু অ্যাওয়ে খেলবে হায়দ্রাবাদ এফসি’র সঙ্গে।