ফাইল

বস্তার : প্রশাসনের কাছে আত্মসমর্পণ করল ১৫ জন মাওবাদী৷ এর মধ্যে ৬ জন মহিলা রয়েছেন৷ ছত্তিশগড়ের বস্তারে রবিবার এঁরা আত্মসমর্পণ করে৷ বিজাপুরের পুলিশ সুপার গোবর্ধন ঠাকুরের সামনে আত্মসমর্পণ করে ১৫জন মাওবাদী৷

আত্মসমর্পণের সময় তিনটি রাইফেলও বাজেয়াপ্ত করে পুলিশ৷ পুলিশ সূত্রে খবর যে সব মাওবাদীরা ধরা দিয়েছে, তাদের মধ্যে এক মহিলা মাওবাদীর মাথার দাম ধরা হয়েছিল ১ লক্ষ টাকা৷ নকশাল চেতনা নাট্য মণ্ডলী বা সিএনএমের প্রধান কমাণ্ডার ওই মহিলা৷

আরও পড়ুন : ‘আলুওয়ালিয়া গুরুং-এর বড় বন্ধু’ দেওয়ানদিঘির সভায় আক্রমণ মমতার

আত্মসমর্পণ করা মাওবাদীদের নাম হল ওভা রাম ওয়াচাম, সুক্কু ওয়াচাম, বানজারাম গোটা, রাইনু ওয়াচাম, ভাদ্দে শংকর, রাজু ওয়াচাম, সুক্কি পাল্লো, বুধরি তেলাম, জুরি পাল্লো, সুনিতা ওয়াচাম, জিম্মো ওয়াচাম, সুক্কু ওয়াচাম, রাজু রাম ওয়াচাম, ইরপে ওয়াচাম৷

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, জীবনের মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনার জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে৷ রাজ্য সরকারের সহযোগিতায় বেশ কিছু নয়া প্রকল্প এদের জন্য আনা হচ্ছে বলেও খবর৷

এদিকে, রবিবারই নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে খতম হয় দুই মাওবাদী৷ ঘটনাস্থল সেই ছত্তিশগড়৷ রবিবার রাজ্যের বিজাপুর জেলায় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে মাওবাদীদের গুলি যুদ্ধ শুরু হয়৷ সেই গুলির লড়াইয়ে দুই মাওবাদী নিকেশ হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

আরও পড়ুন : বহরমপুরের জনসভা থেকে তৃণমূলকে উৎখাত করার ডাক যোগীর

ছত্তিশগড় ও তেলেঙ্গানা পুলিশের যৌথ দল এদিন সকালে রাজধানী রায়পুর থেকে ৫০০ কিমি দুরে বিজাপুরের একটি জঙ্গলে মাও দমন অপারেশন শুরু করে৷ নিরাপত্তা বাহিনী গোটা জঙ্গলকে ঘিরে ফেলে৷ তারপরই শুরু হয় গুলির লড়াই৷ তবে নিরাপত্তা বাহিনীর আক্রমণের সামনে বেশিক্ষণ টিকতে পারেনি মাওবাদীরা৷ কিছুক্ষণ পর গুলি ছোঁড়া বন্ধ হয়ে যায়৷তারপর ঘটনাস্থল থেকে দুটি মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ৷ এছাড়া কিছু অস্ত্র উদ্ধার হয়েছে৷ এখনও সেখানে তল্লাশি চলছে৷

এদিকে, দ্বিতীয় দফার ভোটের দিন অর্থাৎ ১৮ এপ্রিল দুই মাওবাদীকে নিকেশ করা হয় এই ছত্তিসগড়েই। প্রথম দফা ভোটের ঠিক আগে মাওবাদী হামলায় ছত্তিসগড়েই মৃত্যু হয়েছিল এক বিজেপি বিধায়কের। ভীমা মাণ্ডবীর মৃত্যুর ঘটনায় যোগ ছিল এমন দুই মাওবাদীর এনকাউন্টারে মৃত্যু হয়েছে। ছত্তিসগড়ের দান্তেওয়াড়ায় হয় সেই এনকাউন্টার।

আরও পড়ুন : শ্রীলঙ্কা বিস্ফোরণ: জঙ্গিরা ঢুকতে পারে ভারতে, সতর্ক ভারতীয় উপকূলরক্ষী বাহিনী

১৮ এপ্রিল ভোরে অপারেশন শুরু হয়। সাড়ে পাঁচটা নাগাদ প্যাট্রেলিং টিম যখন ওই এলাকায় যায়, তখনই দু’পক্ষের মধ্যে গুলির লড়াই শুরু হয়। রায়পুর থেকে ৪৫০ কিলোমিটার দূরে হয় সেই এনকাউন্টার। দুই মাওবাদীর দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রথম দফা নির্বাচনের ঠিক আগের দিন ১০ এপ্রিল বিজেপি কনভয়ে হামলা চালায় মাওবাদীরা। আর তাতেই মৃত্যু হয় বীমা মাণ্ডবী নামে ওই বিজেপি বিধায়কের।