মুম্বই: চতুর্দশ আইপিএল দলের নতুন সদস্য চেতেশ্বর পূজারা হাতে সিএসকে জার্সি তুলে দিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি৷ শনিবার মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে প্রথম ম্যাচে দিল্লি ক্যাপিটলসের মুখোমুখি তিনবারের চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংস৷ তার আগে বুধবার দলের নতুন সদস্যদের হাতে জার্সি তুলে দিলেন ক্যাপ্টেন মাহি৷ পূজারা ছাড়াও ২০২১ আইপিএল নিলামে মোয়েন আলি, কে গৌতম, হরিশঙ্কর রেড্ডি, ভগৎ ভার্মা এবং হরি নিশান্তকে কিনেছে সুপার কিংস৷ তবে নিলামের ঠিক আগে রাজস্থান রয়্যালেসর থেকে রবিন উত্থাপ্পাকে নেয় সিএসকে৷

ভারতীয় ক্রিকেটে ‘টেস্ট স্পোশালিট’ বলে পরিচিত পূজারা সাত বছর পর আইপিএল সার্কিটে ফিরলেন৷ টিম ইন্ডিয়ার টেস্ট দলে নম্বর তিন ব্যাটসম্যানের অপর নাম ‘মিস্টার ডিপেন্ডবল’৷ এবার সেই ডিপেন্ডবল পূজারাকে আইপিএল নিলামে কেনে চেন্নাই সুপার কিংস৷ সিএসকে-র হাত ধরে ৭ বছর পর ফের আইপিএলে ফিরলেন সৌরাষ্ট্রের এ ডানহাতি ব্যাটসম্যান৷ অর্থাৎ ২০১৪ সালের পর ফের আইপিএল খেলতে দেখা যাবে পূজারাকে৷

ভারতীয় দলের জার্সিতে রেড বল স্পেশালিস্ট এখনও দেশের হয়ে ওয়ান ডে খেলার আশা ছাড়েননি৷ কয়েকদিন আগেই এক সাক্ষাতকারে জানিয়েছিলেন পূজারা৷ আইপিএল খেলার ইচ্ছেপ্রকাশও করেছিলেন৷ বৃহস্পতিবার তাঁর ইচ্ছেপূরণ হল৷ চতুর্দশ আইপিএলে ব্রেস প্রাইস ৫০ লক্ষ টাকায় পূজারাকে কিনল সিএসকে৷ অর্থাৎ ২০২১ আইপিএলে ধোনির দলের হলুদ জার্সিতে দেখা যাবে পূজারাকে৷

এদিন ধোনির হাত থেকে সিএসকে জার্সি নিয়ে পূজারা বলেন, ‘ধোনির হাত থেকে অফিসিয়াল কিট নিয়ে নিজেকে সম্মানিত বোধ করছি৷ একটা ভালো মরশুমের অপেক্ষায় রয়েছি৷’ জার্সি প্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সিএসকে হেড কোচ স্টিফেন ফ্লেমিং৷ এখনও পর্যন্ত আইপিএলে ৩০টি ম্যাচে ৩৯০ রান করেছেন পূজারা৷ স্ট্রাইক-রেট একশোর কাছাকাছি৷ টি-২০ ফর্ম্যাটে তাঁর গড় ৩০৷ স্ট্রাইক-রেট ১০৯.৯৷ একটি সেঞ্চুরিও রয়েছে৷ ২০১৯ সালে সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে রেলওয়েজের বিরুদ্ধে সৌরাষ্ট্রের হয়ে ৬১ বলে ১০০ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেছিলেন পূজারা৷ যার মধ্যে ছিল একটি ছয় ও ১৪টি বাউন্ডারি৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।