প্রতীকী ছবি

চেন্নাই: চার বছর ধরে যৌন হেনস্থা ও ব্ল্যাকমেইলিং-এর শিকার হয়ে এক ব্যক্তিকে খুন করল এক যুবতি। সোমবার এই ঘটনাটি ঘটেছে তামিলনাডুর চেন্নাইতে।

জানা গিয়েছে, খুন হওয়া ওই ব্যক্তির বয়স ৫৪ বছর। এর আগে একাধিকবার যুবতিকে যৌন হেনস্থা করেছে ওই ব্যক্তি। সোমবার বৃদ্ধের চোখে একটা শক্ত আঠা দিয়ে চোখ আটকে তার গলা কেটে ফেলেন ওই যুবতি।

প্রাথমিক পুলিশি তদন্তে জানা গিয়েছে ওই ব্যক্তির নাম, আম্মান সেকার। ইতিমধ্যে ওই যুবতিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আদালতে নিয়ে যাওয়া হলে তাঁকে জেলে পাঠানোর নির্দেশ দেয় আদালত। রিপোর্ট জানাচ্ছে, ২৪ বছরের ওই যুবতির অন্তরঙ্গ দৃশ্য ফাঁস করার লাগাতার হুমকি দিচ্ছিল ওই ব্যক্তি। তারপরেই তাঁকে খুনের সিদ্ধান্ত নেন ওই যুবতি।

তদন্তে উঠে এসেছে ওই ব্যক্তির মেয়ের বান্ধবী ছিলেন ওই যুবতি। সেই সূত্রেই তার সঙ্গে আলাপ হয় ওই বৃদ্ধের। এরপর লাগাতার চার বছর ধরে চলে যৌন নির্যাতন। এরপর হঠাৎই ওই মহিলার বিয়ে ঠিক হয়ে গেলে তাঁকে ব্ল্যাকমেইলিং করতে শুরু করে সেকার নামের ওই ব্যক্তি। আর এরপরেই এর থেকে চিরতরে মুক্তি পেতে ওই ব্যক্তিকে খুন করে ওই যুবতি।

ঘটনার সূত্রপাত সোমবার রাতে এক ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে। মৃতদেহ উদ্ধারের খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ বাহিনী। তদন্তে উঠে আসে, ওই মহিলাকে শেষবার সেকারের সঙ্গে দেখা গিয়েছিল। পাশাপাশি তদন্তে উঠে আসে আরও এক ভয়ঙ্কর তথ্য। পুলিশের কাছে ওই যুবতি দাবি করেছে, যৌন নির্যাতনের ঘটনা সম্পর্কে তার পরিবার জানলেও কিছুই বলত না। কারণ হিসেবে ওই মহিলা জানিয়েছেন, ওই ব্যক্তি তাঁদের পরিবারকে অর্থ সাহায্য করত।

পুলিশকে ওই যুবতি জানিয়েছেন, ওই ব্যক্তিকে খুন করা ছাড়া আর কোনও উপায় ছিল না তার। পুলিশকে তিনি জানিয়েছেন, সাধারণত যেখানে তাঁরা দেখা করতেন সেখানে ওই ব্যক্তিকে ডেকে নিয়ে যান তিনি। তারপর গিফট দেওয়ার নাম করে চোখ বন্ধ করিয়ে চোখে আঠা আটকে দেন তিনি। আর তারপরেই ছুরি দিয়ে গলা কেটে খুন করে তাঁকে।