ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে তা শোধ না করার অভিযোগ উঠল এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে৷ চেন্নাইয়ের ওই স্বর্ণপ্রতিষ্ঠান কণিষ্ক গোল্ড প্রাইভেট লিমিটেডের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ দায়ের করেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই৷

১৪টি ব্যাংক নিয়ে গঠিত কনসোর্টিয়ামের তরফে সিবিআইয়ের কাছে অভিযোগ জানায় স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া৷ অভিযোগ দায়ের হয়েছে ভূপেশ কুমার জৈন, নীতা জৈন, তেজরাজ আচ্চা, অজয় কুমার জৈন এবং সুমিত কেডিয়ার বিরুদ্ধে৷ এদের মধ্যে ভূপেশ ও নীতা কোম্পানির ডিরেক্টর৷ তারা কোম্পানির বিষয়ে ভুল তথ্য সরবরাহ করে ব্যাংক থেকে ঋণ নেয় বলে অভিযোগ৷ তার পাশাপাশি, একটা ভুয়ো স্বচ্ছ ভাবমূর্তিও তুলে ধরা হয় ঋণ নেওয়ার জন্য৷

চলতি বছর জানুয়ারি মাসে সিবিআইয়ের কাছে অভিযোগ দায়ের করে স্টেট ব্যাংক৷ তাতে জানানো হয়েছে, ২০১৭ ডিসেম্বর মাসে ২৪০ কোটি টাকা শোধ করার কথা ছিল কোম্পানির৷ কিন্তু তা না করায় তাদের কর্পোরেট অফিস, ফ্যাক্টরিতে ব্যাংক কর্মীদের পাঠানো হয়৷ ব্যাংকের কর্তারা ঢু মারতে গিয়ে দেখেন সেখানে তালা ঝুলছে৷

সিবিআইয়ের কাছে অভিযোগে স্টেট ব্যাংক আরও জানিয়েছে, কনসোর্টিয়াম থেকে নেওয়া ঋণের ৮২৪.১৫ কোটি টাকা এখনও বকেয়া৷ এদের মধ্যে পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকও রয়েছে৷ কোম্পানিটি পিএনবি থেকে ১২৮ কোটি টাকা ঋণ নেয়৷ ইউবিআই ও আইডিবিআই থেকে বকেয়া ঋণের পরিমাণ যথাক্রমে ৫৪ ও ৪৯ কোটি টাকা৷

অভিযোগের পরই কণিষ্ক গোল্ডের একাধিক জায়গায় তল্লাশি চালায় সিবিআই আধিকারিকরা৷ প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে, ২০১৪ সাল পর্যন্ত সোনার গয়না উৎপাদন করে ডিস্ট্রিবিউটরদের মাধ্যমে ‘ক্রিজ’ ব্র্যান্ড নামে বাজারে বিক্রি করত৷ কিন্তু ২০১৫ সালে নাম পাল্টে হয় বিটুবি এবং রিটেলে তারা গয়না সাপ্লাই করা শুরু করে৷