কলকাতা ২৪x৭: চূড়ান্ত হয়ে গেল দ্বাদশ আইপিএলের দুই ফাইনালিস্ট৷ প্রথম কোয়ালিফায়ারে চেন্নাইকে হারিয়ে আগেই ফাইনাল পাকা করে ফেলেছিল রোহিতের মুম্বই ইন্ডিয়ান্স৷ দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে দাদার দিল্লি ক্যাপিটালসকে হারিয়ে উনিশের আইপিএলে দ্বিতীয় দল হিসেবে ফাইনালের টিকিট অর্জন করে নিল ধোনির সিএসকে৷

আরও পড়ুন- ১০ মরশুমে ৮ ফাইনাল, ধোনির চেন্নাইয়ের সিংহগর্জন

রবিবার ১২ মে, হায়দরাবাদে মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ফাইনালে মুখোমুখি হতে চলেছে চেন্নাই সুপার কিংস৷ দুই দলই এখনও পর্যন্ত তিনবার আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বাদ পেয়েছে৷ চতুর্থবার খেতাব জিতে দ্বৈরথে কে এগিয়ে যায়, সেটাই এখন দেখার৷

ফাইনালে মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে পরিসংখ্যান অবশ্য চিন্তায় রাখতে পারে চেন্নাইকে৷ আইপিএল ফাইনালে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে রেকর্ড ভালো না চেন্নাইয়ের৷ টুর্নামেন্টের বারো বছরের ইতিহাসে দশ মরশুমে লিগ খেলছে দক্ষিণী ফ্র্যাঞ্চাইজি চেন্নাই৷ যার মধ্যে চলতি বছর ধরলে ৮ বার ফাইনালে উঠেছে ধোনিরা৷ এই ৮ বারের মধ্যে তিনবার মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ফাইনাল খেলেছে চেন্নাই৷

আরও পড়ুন-দাদার দিল্লি’র ব্যান্ড বাজিয়ে ফাইনালে ধোনির ‘হুইসেল পডু’

এই তিনবারের মধ্যে দু’বার মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ফাইনালে হেরে বসেছে ধোনিরা৷ আর একবার মুম্বইকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বাদ পেয়েছে হুইসেল পডু এক্সপ্রেস৷

২০১০– ফাইনালে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সকে ২২ রানে হারিয়ে আইপিএলে প্রথমবারের জন্য চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল চেন্নাই৷ প্রথমে ব্যাট করে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৬৮ রান তুলেছিল চেন্নাই৷ ফাইনালে ৫৭ রানে অপরাজিত ছিলেন সুরেশ রায়না৷ জবাবে রান তাড়া করতে নেমে মুরলীধরন, মর্কেলদের বোলিং আক্রমণে নিয়মিত উইকেট হারিয়ে নির্ধারিত ২০ ওভারে মুম্বইয়ের ইনিংস থামে ১৪৬ রানে৷ চ্যাম্পিয়ন হয় চেন্নাই৷ মুম্বইয়ের হয়ে ৪৮ রানের ইনিংস খেলে সচিন তেন্ডুলকর দলকে টানলেও ফাইনাল জেতা হয়নি মুম্বইয়ের৷

২০১৩ সাল- ফাইনালে চেন্নাই ‘বধ’ করে প্রথমবারের জন্য চ্যাম্পিয়ন মুম্বই৷ ১৪৮ রানের পুঁজি নিয়ে লড়াইয়ে নেমে চেন্নাইকে ১২৫ রানে বেঁধে ফেলে ২৩ রানে ফাইনাল জিতে চ্যাম্পিয়ন হয় মুম্বই৷ ফাইনালে ৬০ রান করে মুম্বইকে দেড়শো রানের গণ্ডির কাছে পৌঁছে দিয়েছিলেন কাইরন পোলার্ড৷ ম্যাচের সেরা হয়েছিলেন পোলার্ড৷ জবাবে ধোনি ৬৩ রানে অপরাজিত থেকেও সেদিন ম্যাচ বার করতে পারেননি৷

২০১৫ সাল– ফের ফাইনালে চেন্নাই বনাম মুম্বই ডুয়েল৷ ফের একবার চ্যাম্পিয়ন মুম্বই৷ মুম্বইয়ের ছুঁড়ে দেওয়া ২০৩ রানে টার্গেট তাড়া করতে নেমে চেন্নাইয়ের ইনিংস থামে ১৬১ রানে৷ ৪১ রানে ম্যাচ জিতে চ্যাম্পিয়ন হয় রোহিত অ্যান্ড কোম্পানি৷ ফাইনালে মুম্বইয়ের হয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান সিমন্স ৬৮ ও রোহিত শর্মা ৫০ রানের দুরন্ত ইনিংস খেলেন৷ চেন্নাইয়ের হয়ে ডোয়েন স্মিথ ৫৭ ও রায়না ২৮ ছাড়া অন্যরা ব্যাট হাতে ছড়ি ঘোরাতে ব্যর্থ হন৷

আরও পড়ুন- সমর্থককে ঘুসি মেরে ৩ ম্যাচ নির্বাসিত নেইমার