লন্ডন: লিভারপুলের কাছে অ্যাওয়ে ম্যাচে হারের পর এবার ঘরের মাঠে বার্নলি এফসি’র কাছে পয়েন্ট খোয়াল চেলসি৷ স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে বার্নলি’র সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করে বেকায়দায় দ্য ব্লুজরা৷ লিগে ৩৫টি ম্যাচ খেলা হয়ে গিয়েছে তাদের৷ আপাতত এই ম্যাচ থেকে ১ পয়েন্ট ঘরে তুলে চার নম্বরে উঠে আসে চোলসি৷ তবে লিগে নিজেদের শেষ তিনটি ম্যাচের পর পয়েন্ট টেবিলের প্রথম চারে থাকা কঠিন সারির দলের পক্ষে৷ কেননা, একটি করে ম্যাচ কম খেলে চেলসির ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস ফেলছে আর্সেনাল ও ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড৷ সেক্ষেত্রে পরের মরশুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ খেলা অনিশ্চিত দেখাচ্ছে চেলসির৷ এমনকি শেষবেলায় হঠকারীতা করে বসলে ইউরোপা লিগের টিকিটও হাতছাড়া হতে পারে তাদের৷

আরও পড়ুন: চার গোলে চূর্ণ ম্যান ইউ, জিতে ফের মগডালে লিভারপুল

স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে ম্যাচ শুরুর ২৪ মিনিটের মধ্যেই চারটি গোল হয়৷ দ্বিতীয়ার্ধের খেলা থাকে গোলশূন্য৷ ৮ মিনিটের মাথায় দুরন্ত ভলিতে গোল করে বার্নলিকে এগিয়ে দেন হেনড্রিকস৷ কর্ণার থেকে ভেসে আসা বল চেলসি ডিফেন্ডাররা কোনও রকমে প্রতিহত করতে সক্ষম হলেও বল চলে যায় অরক্ষিত হেনড্রিক্সের কাছে৷ অনবদ্য ক্ষিপ্রতায় তিনি ফিনিশিং টাচ দিতে ভুল করেননি৷

খুব বেশিক্ষণ লিড ধরে রাখা সম্ভব হয়নি বার্লির পক্ষে৷ ১২ মিনিটের মাথায় হ্যাজার্ডের পাস থেকে গোল করে কান্তে সমতায় ফেরান চেলসিকে৷মিনিট দু’য়েকের মধ্যেই চেলসিকে ২-১ গোলে এগিয়ে দেন হ্যাজার্ড৷ ২৪ মিনিটের মাথায় উডের পাস থেকে গোল করে এবার বার্নলিকে সমতায় ফেরান বার্নস৷

আরও পড়ুন: নেইমারের প্রত্যাবর্তন- হ্যাটট্রিক এমবাপের, চ্যাম্পিয়ন পিএসজি

বার্নলি ম্যাচ ড্র করার পর ৩৫ ম্যাচে চেসলির পয়েন্ট সংখ্যা দাঁড়ায় ৬৭৷ সমসংখ্যক ম্যাচে ৮৮ পয়েন্ট নিয়ে একে রয়েছে লিভারপুল৷ ৩৪ ম্যাচে ৮৬ পয়েন্ট নিয়ে আপাতত দু’নম্বরে রয়েছে ম্যান সিটি৷ টটেনহ্যাম ৩৪ ম্যাচে ৬৭ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে জায়গা ধরে রেখেছে৷ বার্নলি ম্যাচ জিতলে টটেনহ্যামকে টপকে তিনে উঠে আসত চেলসি৷ তা না হওয়ায় আর্সেনালের কাছে চতুর্থ স্থান খোয়ানোর আশঙ্কায় রয়েছে সারিরা৷ গার্নার্সরা ৩৪ ম্যাচে ৬৬ পয়েন্ট সংগ্রহ করেছে৷ ম্যান ইউ ৩৪ ম্যাচে ৬৪ পয়েন্ট নিয়ে ছ’নম্বরে রয়েছে৷