সেভিয়া: ম্যাসন মাউন্ট ও বেন চিলওয়েল জুটিতে পোর্তোকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সেমিফাইনালের পথে এক পা-এগিয়ে গেল চেলসি৷ বুধবার রাতে সেভিয়ায় চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে পোর্তোকে ২-০ গোলে হারায় ইংলিশ ক্লাবটি৷ আগামী মঙ্গলবার ফিরতি লেগে মুখোমুখি হবে দুই দল৷ অন্য কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে এদিন বায়ার্ন মিউনিখকে হারায় পিএসজি৷

করোনা ভাইরাস পরিস্থিতিতে ভ্রমণে বিধিনিষেধের কারণে শেষ আটে চেলসি ও পোর্তোর দুই লেগের লড়াই সেভিয়ায় সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। ম্যাচে খুব বেশি সুযোগ তৈরি করতে না-পারলেও জয় তুলে নেয় চেলসি। সেই সঙ্গে প্রথম লেগে পোর্তোকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে ওঠার পথে কিছুটা হলেও এগিয়ে গেল টমাস টুখেলের দল। শেষ ষোলোর দুই লেগেই অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে হারিয়ে সাত বছর পর চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠে চেলসি৷

টুখেল দায়িত্ব নেওয়ার পর সব টুর্নামেন্ট মিলিয়ে টানা ১৪ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর গত শনিবার প্রিমিয়র লিগে ওয়েস্ট ব্রমউইচ অ্যালবিয়নের কাছে হারে চেলসি। অনুশীলনে সংঘাতে জড়ান দলের দুই সদস্য কেপা আরিসাবালাগা ও আন্টোনিও রুডিগার। প্রিমিয়র লিগে বড় হার আর মাঠের বাইরের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার পর চ্যাম্পিয়ন্স লিগে চেলসির জয় নি:সন্দেহে স্বস্তি দেবে কোচ টুখেলকে৷

ম্যাসন মাউন্ট ইংলিশ দলটিকে এগিয়ে নেওয়ার পর ব্যবধান বাড়ান বেন চিলওয়েল। সেই ব্যবধান ধরে রেখে শেষ পর্যন্ত ম্যাচ জিতে নেয় চেলসি৷ শুরু থেকে বল দখলে আধিপত্য রাখলেও খুব বেশি সুযোগ তৈরি করতে পারেনি তারা। প্রতিআক্রমণে সুবিধা করতে পারেনি পোর্তোও। ৩২মিনিটে গোলের উদ্দেশে প্রথম শটেই অবশ্য এগিয়ে যায় চেলসি। জর্জিনিয়োর পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে ডান পায়ের শটে গোল করে চেলসিকে এগিয়ে দেন মাউন্ট। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ইংলিশ এই মিড-ফিল্ডারের এটাই প্রথম গোল। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নক-আউট পর্বে চেলসির কনিষ্ঠ গোলদাতা হলেন মাউন্ট৷ মাত্র ২২ বছর ৮৭ দিন বয়সে চেলসিরে হয়ে এই নজির গড়লেন তিনি৷

ম্যাচের ৫৫ মিনিটে পোর্তোর ফরোয়ার্ড লুইস দিয়াসের ডি-বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। পরে আর বেশি সুযোগ পায়নি পোর্তো৷ ৮৫ মিনিটে চিলওয়েলের গোলে ব্যবধান বাড়ায় চেলসি। প্রতিপক্ষের ভুলে বল পেয়ে ডি-বক্সে ঢুকে গোলরক্ষককে কাটিয়ে ফাঁকা জালে বল জড়ান এই ইংলিশ ডিফেন্ডার।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।