স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: NRS হাসপাতাল চত্বরে ১৬টি কুকুর শাবক পিটিয়ে মারার ঘটনায় চার্জশিট দিল পুলিশ৷ বৃহস্পতিবার শিয়ালদা আদালতে মোট ২০৪ পাতার চার্জশিট পেশ করা হয়েছে৷ তাতে হাসপাতালের দু’জন নার্সকে পশু খুন ও নৃশংসতার ধারায় অভিযুক্ত করা হয়েছে৷ সঙ্গে যোগ হয়েছে প্রমাণ লোপাটের ধারা৷

চলতি বছর ১৩ জানুয়ারি NRS হাসপাতালের নার্সিং হস্টেল চত্বরে পলিথিনের ব্যাগ থেকে ১৬টি কুকুর শাবকের দেহ উদ্ধার হয়৷ তারপরই ওই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে৷ আন্দোলনে নামে পশু প্রেমীরা৷ অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তে নামে পুলিশ৷ তদন্ত শুরু করে নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ৷

কুকুর শাবকগুলিকে পিটিয়ে মারার অভিযোগে হাসপাতালের দুই পড়ুয়াকে ১৫ জানুয়ারি পুলিশ গ্রেফতার করে৷ সিসিটিভি ফুটেজের ভিত্তিতে পুলিশ কিছু পড়ুয়া ও নিরাপত্তা রক্ষীকে সনাক্ত করে জিজ্ঞাসাবাদ করে। তাদের মধ্যে, দুই নার্সিং ছাত্র অপরাধে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে এবং তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। যদিও পরে তারা জামিনে মুক্তি পেয়ে যায়৷ অন্যদিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নার্সিং পড়ুয়া মৌটুসি মণ্ডল ও সোমা বর্মনকে সাসপেন্ড করে৷

১০ মাস আগে এনআরএস হাসপাতালের ভিতর থেকে উদ্ধার হয় ১৬টি কুকুর শাবকের মৃত দেহ ময়না তদন্ত করা হয়৷ সেই রিপোর্টের ভিত্তিতে পুলিশ প্রিভেনশন অফ ক্রুয়েলটি টু অ্যানিমেল অ্যাক্টে মামলা রুজু করে৷ এবং মামলায় পশু হত্যা ও প্রমাণ লোপাটের জন্য ৪২৯ ও ২০১ ধারা যুক্ত হয়৷ এবার এন্টালি থানার পুলিশ চার্জশিট জমা দিল আদালতে৷