নয়াদিল্লি: জেএনইউ কাণ্ডে দেশদ্রোহী মামলার চার্জশিট জমা পড়ল পাতিয়ালা হাউস কোর্টে৷ দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেলের এই চার্জশিটে নাম রয়েছে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন তিন ছাত্র কানাইয়া কুমার, উমের খালেদ, অর্নিবাণ ভট্টাচার্যের৷ চার্জশিটে নাম থাকার খবর শুনে প্রথম প্রতিক্রিয়ায় কানাইয়া কুমার দিল্লি পুলিশ ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন৷

জেএনইউর প্রাক্তন তিন ছাত্র ছাড়াও ১২০০ পাতার চার্জশিটে কাশ্মীরি যুবক আইকুব হুসেন, মুজিব হুসেন, মুনিব হুসেন, উমর গুল, রায়েস রাসুল, বসরত আলি এবং খালিস বাসির ভাট আরও আটজনের নাম উল্লেখ রয়েছে৷ সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে, ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২৪এ, ৩২৩, ৪৬৫, ৪৭১, ১৪৩, ১৪৯, ১৪৭ ও ১২০বি ধারায় এই আটজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে৷

চার্জশিটে নাম থাকার খবর শুনে কানাইয়া বলেন, ‘‘এটি যদি সত্যিই হয় তাহলে মোদীজী ও দিল্লি পুলিশকে ধন্যবাদ৷ ঘটনার তিনবছর পর লোকসভা নির্বাচনের আগে চার্জশিট জমা পড়ার পিছনে রাজনৈতিক চক্রান্তের গন্ধ পরিস্কার৷ তবে দেশের বিচারব্যবস্থার উপর আমার আস্থা আছে৷’’

২০১৬ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি জেএনইউতে সংসদ হামলায় জড়িত আফজল গুরু ও মকবুল ভাটের ফাঁসির আদেশের বিরোধীতা করে দেশবিরোধী স্লোগান দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে কানাইয়া কুমারের বিরুদ্ধে৷ তবে কানাইয়া পাল্টা তোপ দেগে বলেন, ‘‘তারা বিভিন্ন ইস্যুতে সোচ্চার বলেই দেশদ্রোহিতার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে৷ আমি কখনই দেশবিরোধী স্লোগান দিইনি৷’’ এদিকে কানাইয়া এখন লোকসভা ভোটে লড়াই করার প্রস্তুতিতে ব্যস্ত৷ তিনি বিহার থেকে ভোটে দাঁড়াবেন বলে খবর৷