ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার,বালুরঘাট: বেশ কয়েকদিন ধরেই রাস্তায় গাড়ি দাঁড় করিয়ে চাঁদা আদায় চলছিল। পুলিশ তা জানলেও জোর করে চাঁদা আদায় বন্ধের ব্যাপারে উদাসীন মনোভাব দেখিয়েছে বলে অভিযোগ। পরিণতিতে চাঁদা আদায়ের ঘটনার জেরে প্রাণ হারালেন এক পথচারী।

শুক্রবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ দিনাজপুরের গঙ্গারামপুরে। চাঁদা আদায়কারীদের জুলুম থেকে পালানো এক লরির চাকায় পিষ্ট হয়ে মৃত্যু হয় সাধন হালদার নামের ওই পথচারীর৷ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। ক্ষুব্ধ বাসিন্দারা চাঁদার জুলুম বন্ধের দাবিতে জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান।

গঙ্গারামপুর কালীতলা এলাকায় ৫১২ নম্বর জাতীয় সড়কে দিনের আলো ফোটার আগে থেকে স্থানীয় একটি ক্লাবের সদস্যরা পণ্য বোঝাই লরিগুলি থামিয়ে জোর করে দুর্গা পুজোর চাঁদা আদায় করছিল বলে অভিযোগ। এদিন সকাল ছটা নাগাদ রাস্তা আটকে একটি চলন্ত লরির থেকে চাঁদা আদায়ের চেষ্টা করে। চাঁদার জুলুম থেকে বাঁচতে লরিটি পাশ কাটিয়ে যেতে গেলে সামনে পড়ে যান সাধন হালদার নামের ঐ পথচারী। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তাঁর।

পেশায় ফেরিওয়ালা মৃতের বাড়ি কালীতলা এলাকাতেই বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে। ঘটনায় এলাকার মানুষ জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে একঘন্টারও বেশি সময় বাদে অবরোধ তুলতে সক্ষম হয়। চাঁদা আদায়কারী ও ঘাতক লরিটির চালক খালাসিরা পালিয়ে যাওয়ায় কাউকেই ধরতে পারা যায়নি বলে পুলিশ সূত্রে খবর৷