নয়াদিল্লি: আদালতের মধ্যে ‘ভারত মাতা কি জয়’ বলতে বলা হল এক বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতাকে। আর আইনজীবীর এই চ্যালেঞ্জকে ভর্ৎসনা করলেন বিচারক। ধমক দিয়ে বললেন এটা ‘টেলিভিশন স্টুডিও নয়। দিল্লির একটি আদালতে শুনানি চলাকালীন কাশ্মীরী বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা সাবির শাহকে ‘ভারত মাতা কি জয়’ বলতে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেন সরকারি আইনজীবী। দেশপ্রেমের প্রমান দিতে সাবির শাহকে একথা বলতে বলেন এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)-র আইনজীবী। সঙ্গে সঙ্গেই সরকারি আইনজীবীকে ধমক দেন বিচারক সিদ্ধার্থ শর্মা।

আরও পড়ুন: পাকিস্তান অস্বস্তিতে ফেলে ভারতকে চেনাব-ঝিলমে প্রজেক্ট করতে বলল World Bank

এক দশকেরও বেশি পুরনো আর্থিক তছরুপ মামলায় গত মাসে সাবির শাহকে গ্রেফতার করে ইডি। এর আগে পুলিশ এক হাওলা কারবারিকেও গ্রেফতার করা হয়। তার কাছ থেকে ৬৩ লক্ষ টাকা বাজেয়াপ্ত হয়। জেরায় ওই হাওলা কারবারি জানায়, তার কাছে যে টাকা ছিল তা সাবির শাহকে দেওয়ার কথা ছিল। তার বক্তব্যের ভিত্তিতে সাবির শাহকে গ্রেফতার করে ইডি।

আরও পড়ুন: ‘ভারতে এখনও পর্যন্ত নরেন্দ্র মোদীর মতো কেউ তৈরি হয়নি’

আদালতে শুনানির সময় ইডি-র আইনজীবী বলেন, ৬৪ বছরের সাবির শাহর মতো বিচ্ছিন্নতাবাদীরা কাশ্মীরে বিক্ষোভ ও সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপে উস্কানি দিতে বিদেশি অর্থ ব্যবহার করছেন। সাবির শাহর হেফাজতের মেয়াদ বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে আইনজীবী বলেন, এই বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা কোটি কোটি টাকার সম্পত্তি কিনেছেন বলে অভিযোগ। এত অর্থ তিনি কোথা তিনি পেলেন তা জানতে চায় ইডি।
গত ২৫ জুলাই সাবির শাহকে গ্রেফতার করেছিল ইডি। কিন্তু কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থার দাবি, তদন্তে সহযোগিতা করছেন সাবির শাহ। সাবির শাহর আইনজীবী অবশ্য তাঁর বিরুদ্ধে আনা যাবতীয় অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছেন। তিনি দাবি করেছেন, সাবির শাহকে ফাঁসানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: সহ্যের সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছে ভারত, হুমকি চিনের