নয়াদিল্লি: ফের বড় ঘোষণা অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামণের। বড়সড় রদবদল হল জিএসটিতে। হোটেলের ভাড়া কমবে এই রদবদলের পরে। এছাড়াও জিএসটির ক্ষেত্রে একাধিক পরিবর্তন হয়েছে। শুক্রবার এই ঘোষণা করলেন অর্থমন্ত্রী।

কফি জাতীয় পানীয়ের ক্ষেত্রে বাড়ানো হল জিএসটি। ১২ শতাংশের বদলে ট্যাংক্স দিতে হবে ২৮ শতাংশ। এছাড়া হোটেলের ক্ষেত্রে কমছে জিএসটি। ১০০০ টাকা পর্যন্ত ভাড়ার হোটেলের ঘরে কোনও জিএসটি লাগবে না। আর তার থেকে বেশি ভাড়ার হোটেলের ঘরের ক্ষেত্রেও জিএসটির পরিমাণ আগের থেকে কমেছে।

১০০১ টাকা থেকে ৭৫০০ টাকা ভাড়ার ঘরে জিএসটি লাগবে ১২ শতাংশ, যা আগে ছিল ১৮ শতাংশ। ৭৫০০ টাকার বেশি ভাড়ার ঘরের ক্ষেত্রে জিএসটি লাগবে ১৮ শতাংশ, যা আগে ছিল ২৮ শতাংশ। হোটেলে বাইরে খাওয়ার ক্ষেত্রে বর্তমানে জিএসটি লাগে ১৮ শতাংশ। সেটা কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হল।

মেরিন ফুয়েলের ক্ষেত্রেও কমানো হচ্ছে জিএসটি। কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হল আর একইসঙ্গে রেল ওয়াগন, রেল কোচের ক্ষেত্রে জিএসটি বাড়িয়ে ৫ থেকে ১২ শতাশ করা হচ্ছে।

পলিথিন ব্যাগের ক্ষেত্রে ১২ শতাংশ জিএসটি বসানো হচ্ছে। আমন্ড মিল্কের ক্ষেত্রে জিএসটি করা হয়েছে ১৮ শতাংশ। আগামী ১ অক্টোবর থেকে সেই জিএসটি লাগু হতে চলেছে।

শুক্রবারই দেশের অর্থমন্ত্রী নির্মালা করপোরেট ট্যাক্স রেট কিছুটা কমিয়ে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের স্বস্তি দিতে চেয়েছেন৷ সেস এবং সারচার্জ সমেত করপোরেট ট্যাক্সকে ২৫.১৭ শতাংশ’তে নামিয়ে আনতে চেয়েছেন নির্মলা৷ আগামী ১ এপ্রিল থেকে তা কার্যকর হবে৷ পুরানো শেয়ার পুনরায় কিনতে বাড়তি চার্জ বা মূল্য লাগবে না, ঘোষণা করেছেন নির্মলা৷

তবে এই সুবিধাগুলি পাবে শেয়ারবাজারে নথীভুক্ত বা লিস্টেড কোম্পানিগুলি৷ অর্থমন্ত্রী বলেছেন, যেসব কোম্পানিগুলি ২২ শতাংশ আয়কর স্ল্যাবে পড়ছে, তাদের মিনিমাম অলটারনেটিভ ট্যাক্স (ম্যাট) দেওয়ার প্রয়োজন নেই৷ দেশের ম্যানুফাকচারিং কোম্পানিগুলি ১৫ শতাংশ হারে আয়কর দিতে পারবে৷ কোনও ইনসেনটিভের প্রয়োজন পড়বে না৷ নতুন ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানিগুলির কার্যকরী ট্যাক্স হার ১৭.০১ শতাংশ হবে (সারচার্য এবং সেস সহ)৷