কলকাতাঃ  আরও এক মহাজাগতিক ঘটনার সাক্ষী থাকতে চলেছে সাধারণ মানুষ। চন্দ্রগ্রহণ দেখার সাক্ষী থাকবে কলকাতার মানুষও। ভারত ছাড়াও ইউরোপ, অস্ট্রেলিয়া ও আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ থেকে এই গ্রহণ দেখা যাবে। আবহাওয়াবিদরা জানাচ্ছেন, আগামিকাল ৫ জুন রাত ১১টা ১৫ থেকে শুরু হবে গ্রহণ। ৬ জুন রাত ২টো ৩৪ মিনিট পর্যন্ত চলবে। পূর্ণাঙ্গ পর্যায়ে গ্রহণটি দেখা যাবে ৬ জুন রাত ১২টা ৫৪ মিনিটে। গ্রহণ চলবে ৩ ঘণ্টা ১৮ মিনিট ধরে।

এই দীর্ঘ সময় ধরে চাঁদকে ফ্যাকাসে দেখতে পাওয়া যাবে। পুরোপুরি ঢাকা পড়বে না। কারণ, এটি আংশিক চন্দ্রগ্রহণ। এটিই এই বছরের দ্বিতীয় চন্দ্রগ্রহণ। ১০ জানুয়ারি ছিল চন্দ্রগ্রহণ। আগামীকাল শুক্রবার ৫ জুন হবে দ্বিতীয় চন্দ্রগ্রহণ। এরপর বছরের তৃতীয় চন্দ্রগ্রহণ হবে ৫ জুলাই। বছরের শেষ চন্দ্রগ্রহণ হবে ৩০ নভেম্বর। ১০ জানুয়ারি প্রথম চন্দ্রগ্রহণের মতো এবারের গ্রহণটিও উপচ্ছায় গ্রহণ।

এই গ্রহণের ক্ষেত্রে সাধারণ চাঁদের সঙ্গে তার ফারাক করা মুশকিল। কারন উপচ্ছায় গ্রহণ। এক্ষেত্রে চাঁদ পুরোটাই দেখা যাবে, তার আকারের কোনও পরিবর্তন হবে না ৷ আগামিকাল শুক্রবার গ্রহণের কারণে শুধুমাত্র চাঁদ কিছুটা ফ্যাকাসে দেখাবে৷

তবে রাত ১২.৩০ টা নাগাদই চাঁদের ওপর গ্রহণের প্রভাব পড়বে বেশিমাত্রায়৷ এই চন্দ্রগ্রহণে তখনই হয় যখন সূর্য ও চন্দ্রের মাঝামাঝি পৃথিবী চ‌লে আসে। কিন্তু এই তিনজন সরলরেখায় থাকে না। তখনই হয় চাঁদের উপচ্ছায়া গ্রহণ। তাহলে আর কি মহাজাগতিক এক দৃশ্য দেখার জন্যে তৈরি থাকুন।

অন্যদিকে শুক্রবার সকালে আরও এক মহাজাগতিক ঘটনা দেখার সুযোগ থাকবে। কোলকাতা বা হাওড়ায় থাকেন, ৫ই জুন সকালের রোদ উঠলে ছাদে কিংবা খোলা আকাশের নিচে কয়েকটা বালতি, মগ, টব, বা খাড়া কৌটো কি পাইপ দাঁড় করিয়ে রাখুন। দেখবেন, প্রত্যেকেরই ছায়া পড়েছে পশ্চিম দিকে । এরপর বেলা সাড়ে এগারোটা বাজার একটু আগেই ক্যামেরা নিয়ে আবার সেখানে যান। ১১.৩৬এ সোজা হয়ে দাঁড়ালে দেখবেন ছায়া উধাও হয়েছে। কেন এমন ঘটনা ঘটবে?

আরও বিস্তারিত জানতে ক্লিক করুন-

ভৌতিক না মহাজাগতিক! জ্যৈষ্ঠের দুপুরে ‘উবে’ গেল কলকাতার মানুষের ছায়া

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV