চন্ডীগড়: খুচরোর কারণে স্থগিত হয়ে গেল একটি মামলার শুনানি! শুনতে অবাক লাগলেও এমনটাই ঘটেছে চন্ডীগড়ে৷ খোরপোশে ২৪,৬০০ টাকা খুচরো দেওয়ায় তা গুনে নেওয়া অসম্ভব হয়ে ওঠে, আর এই কারণেই মঙ্গলবার স্থগিত হয়ে যায় মামলাটি৷

সূত্রের খবর, পঞ্জাব এবং হরিয়ানা হাইকোর্টের আইনজীবী তাঁর প্রাক্তন স্ত্রীকে আদালতের মধ্যে মাসিক খোরপোশ দিতে গিয়ে ২৪,৬০০ টাকার এক ব্যাগ ভর্তি এক টাকা এবং দু টাকার কয়েন দেন, যা দেখে মহিলা ক্ষোভে ফেটে পড়েন৷ আইনজীবীর প্রাক্তন স্ত্রী বলে ওঠেন, ‘আমার ওপর অত্যাচার করার এ এক নতুন উপায়৷ আইনকে নিয়ে ঠাট্টা চলছে৷’

পড়ুন: ভারতের চায়ের বিশ্ব রেকর্ড! দাম উঠল ৩৯০০০/কেজি

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে বিবাহ-বিচ্ছেদের আবেদন করেন৷ আদালতের রায়ে প্রতি মাসে ২৫,০০০ টাকা প্রাক্তন স্ত্রীকে দিতে বলা হয় ওই আইনজীবীকে৷ কিন্তু তা দিতে না পারায় মহিলা আদালতের শরণাপন্ন হন৷ এরপর আইনজীবীকে ৫০,০০০টাকা দিতে বলা হয়, দুমাসের খোরপোশ বাবদ৷

এরপর মহিলাকে ২৪,৬০০ টাকা খুচরো দেওয়াতে ক্ষোভে ফেটে পড়েন এবং জানান, ওই আইনজীবীর যথেষ্ট সম্পত্তি এবং টাকা রয়েছে৷ তাই তাঁকে খোরপোশ দিতে না পারার অজুহাত তিনি মানবেন না৷ পাশাপাশি এও জানান, এত খুচরো কোনও ব্যাংক নেবে না৷ কি করবেন তিনি এই খুচরো নিয়ে? প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন সরাসরি৷

তবে আইনজীবীর সাফ কথা, কোথাও লেখা নেই ১০০, ৫০০ অথবা ২,০০০-এর নোটেই খোরপোশের টাকা দিতে হবে৷ এই খুচরো খোরপোশ হিসেবে তুলে দেওয়ার আগে তার তিন জুনিয়রকে তা গুনতে বলেছেন৷ তবে ২৪,৬০০টাকা কয়েনে দিলেও বাকি চারশো টাকা তিনি ১০০-র নোটেই দিয়েছেন বলে জানান৷