ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা : আজ সারাদিনই বৃষ্টি চলবে। দক্ষিণে প্রবল বৃষ্টি হলেও, উত্তরে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হবে। দক্ষিণবঙ্গের নদিয়া, বীরভূম, পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলিতে অতি ভারী বৃষ্টি হবে বলে জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর।

আলিপুর আবহাওয়া দফতরের অধিকর্তা গণেশকুমার দাস জানিয়েছেন, ‘উত্তর বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ তৈরি হয়েছে। আগামী দু’দিন বৃষ্টি চলবে। মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

আজ সকাল পর্যন্ত আসানসোলে ৬০.৬, বর্ধমানে ৭২.৬, ডায়মন্ড হারবারে ৩.৫, দিঘায় ১৯.৫, মেদিনীপুরে ১৬.০ ও শ্রীনিকেতনে ৩৬.০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। দীর্ঘদিন ভ্যাপসা গরমের পর বৃষ্টি শুরু হয়েছে দক্ষিণবঙ্গে। বৃষ্টির জেরে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি উধাও। সকাল থেকে গরম নেই।

নিম্নচাপ আজ আরও শক্তিশালী হবে। গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ সংলগ্ন বাংলাদেশের রয়েছে ঘূর্ণাবর্ত। এই দুই সিস্টেমের টানে সক্রিয় মৌসুমী অক্ষরেখা। মৌসুমী অক্ষরেখা গয়া, জামশেদপুর এবং দীঘার উপর দিয়ে উত্তর বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত।

এর জেরে নদিয়া, পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর ,বীরভূম উত্তর ২৪ পরগণা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হাওড়া ও হুগলি ,দক্ষিণবঙ্গের এই আট জেলায় অতি ভারী বৃষ্টির সর্তকতা জারি হয়েছে। ২০০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা র য় আগামী ২৪ ঘণ্টায়।

প্রবল বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে মধ্য ও দক্ষিণ ভারতের বেশ কিছু রাজ্যে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় মুম্বই ও মধ্য মহারাষ্ট্রের বিভিন্ন শহরে প্রবল বৃষ্টিপাতের আশঙ্কা। অতি ভারী বৃষ্টি হবে কঙ্কন ও গোয়া উপকূলে। আগামী কয়েকদিন গুজরাট কেরাল ও কর্ণাটক উপকূলেও ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও