স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : টানা দুই দিন দার্জিলিং-এ বরফপাতের পূর্বাভাস দিচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। এই শীতের মরসুমে বেশ কয়েকবার বরফপাত হয়েছে দার্জিলিং-এ। এক দশক পর বরফ পড়েছিল দার্জিলিং ম্যালেতে। শীতের প্রায় শেষে এসে আবারও বরফপাত হতে পারে রাজ্যের উচ্চতম জেলায়। তাও টানা দুই দিন।

নতুন বছরের জানুয়ারিতে একের পর এক পশ্চিমী ঝঞ্ঝা হাজির হয়েছে হিমালয়ের উপর। এর জেরে পশ্চিমবঙ্গের পাহাড়ে বরফ পেয়েছে। ডেলো থেকে শুরু করে ঘুম ঢেকে গিয়েছিল বরফে দেদার। আবারও পশ্চিমি ঝঞ্ঝা উপস্থিত হয়েছে। মঙ্গলবার যার অবস্থান ছিল আফগানিস্তানে।

এর জেরে আগামী কাশ্মীর, হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ডে প্রবল তুষারপাতের সম্ভাবনা যেমন রয়েছে তেমনই তুষারপাতের সম্ভাবনা রয়েছে দার্জিলিং-এ। আগামি ২ দিন যেমন বরফপাত হবে তেমনই ব্যাপক ঠাণ্ডা হাওয়া দেবে পাহাড়ের এই জেলাতে। কোথাও কোথাও শিলা বৃষ্টি হতে পারে। ফলে সবমিলিয়ে আরও একবার কাঁপতে পারে শৈল শহর।

দিল্লি থেকে কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, নতুন পশ্চিমী ঝঞ্ঝাটি ব্যাপক শক্তিশালী। সাধারণত, এই ধরনের ঝঞ্ঝা প্রভাব ফেলে রাজস্থান-হরিয়ানা লাগোয়া অঞ্চলে। ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হয়। এবার ঝঞ্ঝাটি নিম্নচাপও তৈরি করতে পারে।

 

 

শনিবার গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে বৃষ্টি হতে পারে বলে মনে করছেন আবহবিদরা। কলকাতাসহ দক্ষিণবঙ্গের সমস্ত জেলাতেই পারদ চড়েছে। শীতের বেলা যেমন ফুরিয়েছে তেমনই ভাবেই বেড়েছে পারদ। পশ্চিমি ঝঞ্ঝা এই পারদ চড়াকে আরও ইন্ধন জুগিয়েছে। যেমন বৃহস্পতিবার সকালে কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ১৬.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিক। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৮.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের চেয়ে এক ডিগ্রি বেশি।

এই ঝঞ্ঝার জেরেই শুক্রবার দক্ষিণবঙ্গের সমস্ত জেলায় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। বৃষ্টি হতে পারে কলকাতাতেও। পাশাপাশি পুবালি এবং পশ্চিম দিকের মিশ্র হাওয়াও এই বৃষ্টির অন্যতম কারণ হতে পারে বলে জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। ফলে বৃষ্টি হলে তারপর কিছুটা নামতে পারে পারদ।