তিমিরকান্তি পতি (বাঁকুড়া): ‘মোদীময়’ চা বিক্রেতা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তার কাছে ভগবান, তার অনুপ্রেরণা। ঠিক এমনটাই মনে করেন বাঁকুড়ার সোনামুখী ব্লকের নিত্যানন্দপুর গ্রামের পেশায় চা বিক্রেতা অজিত বৈদ্য। চা বিক্রি করে নরেন্দ্র মোদীর মতো তিনিও একদিন ‘একটা জায়গায় পৌঁছবেন, এমটাই বিশ্বাস করেন অজিত বৈদ্য।

দামোদর তীরবর্ত্তী ছোট্ট গ্রাম নিত্যানন্দপুরে বেড়ে ওঠা এই মানুষটি এলাকায় বিজেপি কর্মী হিসেবে যথেষ্ট পরিচিত। যে সময় বিজেপি নামকরণ হয়নি, জনসংঘ হিসেবে আত্মপ্রকাশ সেই সময় থেকেই তিনি এই রাজনৈতিক দলটির সঙ্গে যুক্ত বলে স্থানীয়দের দাবী। বাড়ির পাশের দামোদর দিয়ে অনেক জল গড়িয়েছে, কেন্দ্র-রাজ্যে সরকারের উথাথান পতন দেখেছেন, অনেক নেতা এসেছেন, গেছেন তবুও নিজের আদর্শে অবিচল মধ্য পঞ্চাশের অজিত বৈদ্য।

শুধু এই নির্বাচনের সময় বলে নয়, প্রতিদিন সকালে নিয়ম করে বিজেপির প্রতীক পদ্ম ফুল আর নরেন্দ্র মোদীর ছবি যুক্ত গেঞ্জি আর টুপি পরে দোকানের ঝাপ খোলেন তিনি। এভাবেই সকাল থেকে সন্ধ্যে খদ্দেরদের মনোরঞ্জন করেন তিনি। আর চায়ের মানে রাজনৈতিক চর্চা তো থাকবেই। সেভাবেই বাম-ডান সব পক্ষের নেতা কর্মীদের উপস্থিতিতিতে গরম চায়ের কাপ হাতে অজিত বৈদ্যের দোকানে চলতে ‘চায়ে পে চর্চা’।

নিত্যানন্দপুর মিনি মার্কেটে অজিত বৈদ্যের চায়ের দোকানে বসে স্থানীয় বাসিন্দা মৃত্যুঞ্জয় বিশ্বাস বলেন, অজিত বৈদ্য নিজে এতোটাই বিজেপি ভক্ত যে একটা নিজের চাষের জমি বন্ধক রেখে তৎকালীন বিজেপি রাজ্য সভাপতি রাহুল সিনহার জনসভার আয়োজন করেছিল। পরে সংসার চালানোই সমস্যা হয়ে পড়েছিল। মোদীর প্রথম জীবনে চায়ের দোকান দেওয়ার কথা শুনে অনুপ্রাণিত অজিত বৈদ্য গ্রামে চায়ের দোকান দেওয়ার পর আর্থিক অবস্থার পরিবর্তন ঘটেছে। প্রান্তিক এই মানুষটি এতোটাই ‘মোদীভক্ত’ যে তাকে অনেকে ‘অজিত বৈদ্য মোদী ছাড়া মনি হারা ফণি’ বলতে শুরু করেছেন।

আর যাঁকে নিয়ে এতো চর্চা সেই চা বিক্রেতা অজিত বৈদ্য খদ্দেরদের হাতে চা তুলে দেওয়ার ফাঁকে বলেন, আমি সক্রিয়ভাবে বিজেপি করি এলাকার সবাই তা জানে। তবুও সব রাজনৈতিক দলের স্থানীয় নেতা কর্মীরা আমার দোকানে আসেন। চা খান, রাজনৈতিক আলোচনা হয়। কোন বিরোধ নেই এতে। তবে তিনি মনে প্রাণে বিশ্বাস করেন, তার আরাধ্য নরেন্দ্র মোদী চা বিক্রি করে যদি দিল্লীর মসনদে বসতে পারেন, তবে তিনিও একদিন ‘একটা ভালো জায়গায়’ নিশ্চিত পৌঁছাতে পারবেন। কিন্তু সেই ‘ভালো জায়গা’টা কি তা যদিও খোলসা করেন নিত্যানন্দপুরের নরেন্দ্র মোদী।

আগামী দিনে এই চা বিক্রেতা অজিত বৈদ্য তাঁর অভিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবেন কিনা তা সময় বলবে। তবে তিনি যে এই ভোটের বাজারে এলাকায় ‘নরেন্দ্র মোদি’ আর পরিবারের লোকের কাছে প্রধানমন্ত্রী হয়ে উঠেছেন সেবিষয়ে কোন সংশয় নেই।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা