কলকাতা: এক বড় আবাসনের ফ্ল্যাটে বাস করেন এক কবি৷ চতুর্দিকে যা ঘটে চলেছে সেই সব নিয়ে কবিতা লেখা তাঁর শখ৷ সেই একলা কবির ফ্ল্যাটের পাশে ফ্ল্যাট নেয় শিউলি৷ নতুন বিয়ে হয়ে বরের হাত ধরে এসেছে নতুন জায়গায়৷ কিন্তু রান্না না জানায় সমস্যায় পড়তে হচ্ছে তাকে৷ ঠিক এই জায়গা থেকেই গল্পের শুরু৷ তবে শুধু গল্প বললে হবেনা৷ সঙ্গে থাকছে নিত্যদিনের সমস্যা ও ভাইরাল খবর নিয়ে আলোচনা পর্যালোচনা৷ এসবের পাশাপাশি থাকছে খুনসুটি আর হরেক রকম রান্না৷ জিভে জল আনা সেইসব রান্না শেখাবেন খরাজ মুখার্জী৷ খবর খাবার সবই ভাজা হবে এই শো-এ৷ নাম তাই ভাজা খবর৷

একসময়ের কালজয়ী হাস্যকৌতুকের রাজা ছিলেন ভানু বন্দ্যোপাধ্যায় ও জহর গাঙ্গুলি৷ পেট ফাটা হাসিতে ফেটে পরত অন্ধকার প্রেক্ষাগৃহ৷ সেই দুই প্রবাদ প্রতিম কৌতুক শিরোমণিকে মাথায় রেখেই হাস্যরসাত্মক একটি খবরের অনুষ্ঠানের কথা ভাবেন কলকাতা 24×7 এর কর্ণধার সৌমেন সরকার৷ ভাবনার শুরু সেখান থেকেই৷ ভানু বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘ভা’ এবং জহর গাঙ্গুলির ‘জ’ নিয়ে হয় ‘ভাজ খবর’ যা পরবর্তীতে ‘ভাজা খবর’ হয়৷ তাতে তড়কা মেশান ডিরেক্টর সূপর্ণা সিনহা রায়৷ বিভিন্ন সময়ের বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা ও নানান খবর নিয়ে শুরু হয়ে যায় ভাজা খবর৷ যার প্রধান চরিত্রে রয়েছেন খরাজ মুখার্জী৷ তাঁর সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করছেন মধুরিমা দত্ত৷ যাঁকে আপনারা শিউলি চরিত্রে দেখতে পাবেন পর্দায়৷ স্ক্রিপ্টের দায়িত্বে রয়েছেন ডঃ কৃষ্ণেন্দু চ্যাটার্জী৷

ডিজিটাল বা টিভির পর্দায় এমন অভিনব ভাবনা নিয়ে অনুষ্ঠান এই প্রথম৷ বিরাট ভদ্রর চরিত্রে অভিনয় করতে গিয়ে খরাজ মুখার্জী জানিয়েছেন “এমন অভিনব ভাবনা নিয়ে তৈরি এই অনুষ্ঠান সকলের ভালো লাগবে৷” ডঃ কৃষ্ণেন্দু জানিয়েছেন “মূল চরিত্রের নাম বিরাট ভদ্র তবে তিনি কতটা ভদ্র তা এপিসোড শুরু না হলে দর্শকরা বুঝতে পারবেন না৷” খরাজ মুখার্জীকে কো-অ্যাক্টর হিসেবে পেয়ে বেজায় খুশি মধুরিমা দত্ত জানিয়েছেন “বিরাট ভদ্রর কাছে রান্না শিখতে এসে বেশ কঠিন কঠিন রান্না তাঁকে করতে হচ্ছে, যেখানেই খেই হারিয়ে ফেলছেন বিরাট ভদ্র তাঁকে শিখিয়ে দিচ্ছেন ও ধরিয়ে দিচ্ছেন ভুল৷ আমি খুব এক্সাইটেড৷”

প্রডিউসার সৌমেন সরকার জানিয়েছেন অনুষ্ঠানটি নিয়ে বেশ আশাবাদী তিনি৷ তাঁর কথায় “কলকাতা 24×7 ও CFP Films এর উদ্যোগে খবর নিয়ে কূটকাচালি ও সুস্বাদু রান্না নিয়ে ভাজা খবর আসতে চলেছে এই নতুন বছরেই৷” ডিরেক্টর সুপর্ণা সিনহা রায় জানান “বিরাট ভদ্র ও শিউলির মধ্যে একটা মাখোমাখো সম্পর্ক তৈরি হয়েছে যা দর্শকরা না দেখলে বড় মিস করবেন৷ চপচপে তেলে ভাজা খেতে বাঙালি যদি পছন্দ করেন তাহলে ‘ভাজা খবরে’ খাবার ও খবর দুটোই তাঁদের সমান আকর্ষণ করবে বলে আমার ধারণা৷” মজার খবর ভাজা খবর৷ খবরের সঙ্গে রয়েছে রসনাতৃপ্তি৷ সেই রান্না রাঁধতে গিয়ে বিরাট ও শিউলি কতটা ল্যাজে গোবরে হয়েছে তা দেখতে মিস করবেন না ‘ভাজা খবর’৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।