কলকাতাঃ  বঙ্গোপসাগরে গভীর নিম্নচাপ। যা আরও শক্তিশালী হয়েছে। আর সেই কারণে কলকাতা-সহ সমগ্র গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে প্রবল ঝড় বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। একেবারে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ ভারী বর্ষণের পূর্বাভাস করেছে আবহাওয়া দফতর।

আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ভারী বৃষ্টি হতে পারে পূর্ব মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব বর্ধমান, বাওড়া, কলকাতা, হুগলিতে। যার জন্য ইতিমধ্যে হলুদ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, আগামী ৪৮ ঘন্টাতে বৃষ্টির পরিমাণ আরও বাড়বে বলে হাওয়া অফিসের তরফে জানানো হয়েছে।

প্রবল দুর্যোগ হতে পারে, সেই আশঙ্কা থেকে ইতিমধ্যে নবান্নকে সতর্ক করেছে আলিপুর হাওয়া অফিস। আর তা পাওয়ার পরেই জেলা প্রশাসনকে সতর্ক থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে আগামী ৪৮ ঘন্টায় প্রবল দুর্যোগের আশঙ্কায় সতর্ক রয়েছে সিইএসসি।

আমফানের পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে বেশ কয়েকদিন কেটে যায়। প্রশ্ন উঠছে থাকে সিইএসসির ভূমিকা নিয়ে। এই অবস্থায় বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের আগাম সতর্কবার্তা জারি করল সিইএসসি। দফায় দফায় গ্রাহকদের কাছে যাচ্ছে সিইএসসির অ্যালার্ট! বৃষ্টির কারণে মঙ্গলবার পর্যন্ত বিদ্যুৎ পরিষেবা ব্যাহত হতে পারে।

আর তা ঝড় বৃষ্টির কারণে হতে পারে বলে আশঙ্কা সিইএসসি। আর সেই কারণেই গ্রাহকদের এই অ্যালার্ট। ইতিমধ্যে বিশেষ হেল্পলাইন প্রকাশ করা হয়েছে সিইএসসির তরফে। হেল্পলাইন নম্বর ১৯১২।

বিদ্যুৎ বিভ্রাটের অভিযোগ থাকলেই এই নম্বরে জানাতে বলা হয়েছে সিইএসসির তরফে। আমফানের স্মৃতি এখনও টাটকা। আর তা থেকে শিক্ষা নিয়েই এবার আগেভাগেই সতর্ক সিইএসসি।

অন্যদিকে আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ভারী বৃষ্টি হতে পারে পূর্ব মেদিনীপুর, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব বর্ধমান, বাওড়া, কলকাতা, হুগলিতে। যার জন্য ইতিমধ্যে হলুদ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, আগামী ৪৮ ঘন্টাতে বৃষ্টির পরিমাণ আরও বাড়বে।

আর সেই কারণে সোমবার ও মঙ্গলবারের জন্য দক্ষিণবঙ্গে কমলা সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সোমবার ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টি হতে পারে। বীরভূম, পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, পশ্চিম মেদিনীপুর এবং ঝাড়গ্রামে প্রবল বৃষ্টি হবে। ভারী বৃষ্টি হতে পারে দক্ষিণবঙ্গে বাকি জেলাগুলিতে।

মঙ্গলবার ভারী বৃষ্টি হতে পারে বীরভূম, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, পশ্চিম বর্ধমানে। আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে বিকাল থেকেই রাজ্যের উপকূলবর্তী দুই ২৪ পরগনা জেলা ও দুই মেদিনীপুরে শুরু হয়ে যাবে ঝোড়ো হাওয়া। ঘন্টায় ৪০ থেকে ৫০ কিমি বেগে বইবে হাওয়া।

যে সব মৎস্যজীবি সমুদ্রে মাছ ধরতে গিয়েছে তাঁদের আজ বিকালের মধ্যেই তীরে ফিরে আসতে বলা হয়েছে। ইতিমধ্যে প্রবল দুর্যোগ হতে পারে বলে নবান্নকে সতর্ক করেছে আলিপুর হাওয়া অফিস। আর তা পাওয়ার পরেই জেলা প্রশাসনকে সতর্ক থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।