নয়াদিল্লি: লোকসভার পর রাজ্যসভায় মঙ্গলবার আরও একটি কৃষি বিল পাস করাল কেন্দ্রীয় সরকার। কার্যত বিরোধীশূন্য রাজ্যসভায় বিনা বিধায় সহজেই বিলটি পাশ করিয়ে নিল কেন্দ্র। এবার থেকে চাল, ডাল, আলু, পিঁয়াজ-সহ বেশ কয়েকটি দৈনন্দিন খাদ্যসামগ্রী আর অত্যাবশ্যকীয় পণ্য হিসেবে গণ্য হবে না। এদিনের পাস হওয়া এই বিলটিতে এই ব্যবস্থারই সংস্থান রয়েছে।

কৃষি বিল নিয়ে বিরোধীদের লাগাতার প্রতিবাদেও অনড় মনোভাব কেন্দ্রের। মঙ্গলবার কার্যত বিরোধীশূন্য রাজ্যসভায় পাস হয়ে গেল কৃষি সংক্রান্ত আরও একটি বিল। রাজ্য়সভার আট সাংসদকে বরখাস্তের প্রতিবাদে অধিবেশন বয়কট করেছে বিরোধীরা।

গত ১৫ সেপ্টেম্বর লোকসভায় বিলটি পাস করিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। এবার রাজ্যসভাতেও কার্যত বিনা বাধায় বিলটি পাস হয়ে গেল। কী রয়েছে এই বিলে? জানা গিয়েছে, এই বিলটি পাস হয়ে যাওয়ায় এবার থেকে অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের তালিকায় থাকছে না চাল, ডাল, আলু, পিঁয়াজ-সহ বেশ কয়েকটি দৈনন্দিন খাদ্যসামগ্রী।

বিরোধীদের অভিযোগ, গায়ের জোরে দেশের গরিব মানুষকে ভয়ঙ্কর বিপদের মুখে ঠেলে দিল কেন্দ্র। তাঁদের অভিযোগ, এবার থেকে চাল, ডাল, আলু, পিঁয়াজ-সহ বেশ কয়েকটি দৈনন্দিন খাদ্যসামগ্রী ইচ্ছেমতো মজুত করতে পারবেন ব্যবসায়ীরা।

পরে সেই পণ্য নিজেদের খেয়াল-খুসি মতো দামে তাঁরা বিক্রি করতে পারবেন। কোনও রাজ্য সরকারই এব্যাপারে হস্তক্ষেপ করতে পারবে না। মজুত পণ্যের উপর সরকারি কোনও নিয়ন্ত্রণ থাকবে না। বিরোধীদের দাবি, এই ব্যবস্থার ফলে কৃষকরা তো দুর্দশায় পড়বেনই, এমনকী সাধারণ খেটে-খাওয়া মানুষেরও নাভিশ্বাস উঠবে।

বিরোধীদের আরও আশঙ্কা, কেন্দ্রের এই পদক্ষেপের ফলে দেশি-বিদেশী কর্পোরেটরা ফায়দা লুঠবে। কৃষকদের কাছ থেকে কম দামে পণ্য কিনে তাঁরা চড়া দামে বাজারে বিক্রি করবে।

দৈনন্দিন খাদ্যসামগ্রীর গোটা বাজারটাই কর্পোরেটদের দখলে চলে যাবে বলে আশঙ্কা বিরোধীদের। যদিও কেন্দ্রীয় সরকার বিরোধীদের সেই সব আশঙ্কাই উড়িয়ে দিয়েছে। কেন্দ্রের যুক্তি, কৃষি বিল পাস হয়ে যাওয়ায় কৃষকরা বাঁধনমুক্ত হলেন। কৃষি ক্ষেত্রে নয়া দৃষ্টান্ত স্থাপন করবে এই বিল।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।