বিশাখাপত্তনম: ২০১৯ আইপিএলে দল পাননি৷ গোলাপি শহরে দ্বাদশ আইপিএল নিলামে অবিক্রিত থেকে গিয়েছেন মনোজ তিওয়ারি৷ কিন্তু তার পর মাঠে নেমেই ব্যাটে জবাব দিলেন বঙ্গ অধিনায়ক৷ শনিবার রঞ্জি ট্রফির গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে বিশাখাপত্তনমে অন্ধপ্রদেশের বিরুদ্ধে অধিনায়কের ব্যাটে লড়াইয়ে ফিরল বাংলা৷

মাত্র ৩১ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা বাংলার ইনিংসকে টেনে তোলে ক্যাপ্টেন মনোজ৷ চতুর্থ উইকেটে অগ্নিভ পানকে সঙ্গে প্রথম সেঞ্চুরি পার্টনারশিপ গড়ে বাংলাকে ম্যাচ ফেরান মনোজ৷ ব্যক্তিগত ৩৯ রানে অগ্নিভ প্যাভিলিয়নে ফিরে গেলে ঋত্বিক চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার মরিয়া চেষ্টা চালান বঙ্গ অধিনায়ক৷ কিন্তু বিজয় কুমারের ডেলিভারিতে থেমে যায় মনোজের লড়াই৷ প্রথমশ্রেণির ক্রিকেটে ২৬তম সেঞ্চুরি থেকে কয়েক পা দূরে থামলেন মনোজ৷

ব্যক্তিগত ৯০ রানে আউট হয়ে প্যাভিলিয়নের পথে হাঁটা লাগান মনোজ৷ ১৬৪ বলের ইনিংসে ১৪টি বাউন্ডারি মারেন তিনি৷ মনোজের ব্যাট ভর করে প্রাথমিক বিপর্যয় কাটিয়ে প্রথম দিনের শেষে ছ’ উইকেটে ১৯৬ রান তুলেছে বাংলা৷ ঋত্বিক ২৭ এবং প্রদীপ্ত প্রামাণিক ২ রানে ক্রিজে রয়েছেন৷ টস জিতে এদিন এসিএ-ভিডিসিএ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বাংলাকে প্রথমে ব্যাটিং করতে পাঠায় অন্ধপ্রদেশ৷

আগের ম্যাচে হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে তিন পয়েন্ট পেলেও রঞ্জি ট্রফির নতুন নিয়মে মোটেই ভালো জায়গায় নেই বাংলা৷ এখনও পর্যন্ত পাঁচ ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে বি-গ্রুপে চার নম্বরে রয়েছে মনোজ তিওয়ারিরা৷ পাঁচ ম্যাচের মধ্যে একটিতে জয় পেয়েছে বঙ্গবিগ্রেড৷ চেন্নাইয়ে গিয়ে তামিলনাড়ুর বিরুদ্ধে আট পয়েন্ট পেলেও ঘরের মাঠে কেরলের কাছে হার অনেকটাই পিছিয়ে দেয় মনোজদের৷ রঞ্জি ট্রফির নতুন নিয়মে তিন এলিট গ্রুপ থেকে সেরা পাঁচটি দল নক-আউটের জন্য কোয়ালিফাই করবে৷ সেদিক থেকে অনেকটাই পিছিয়ে বাংলা৷