নয়াদিল্লি: উৎসবের মরসুমে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের জন্য সুখবর৷ কারণ কেন্দ্র ‘উপহার নীতি’ শিথিল করল।ফলে বাড়ানো হল উপহারের আর্থিক পরিমাণের ঊর্ধ্বসীমাও। তা ছাড়া, বিদেশিদের কাছ থেকে উপহার নেওয়ার ক্ষেত্রেও নীতিগত বদল এনেছে মোদী সরকার৷কেন্দ্রের কর্মীবর্গীয় মন্ত্রকের তরফে এমনটাই জানানো হয়েছে।

এই উপহার নীতিতে মূলত অন্তর্ভুক্ত ‘এ’, ‘বি’, ও ‘সি’ এই তিন শ্রেণির কর্মীরা রয়েছেন। এতদিন নিয়ম ছিল আধিকারিক পদ মর্যাদার ‘এ’ এবং ‘বি’ শ্রেণির কর্মীদের দেড় হাজার টাকার বেশি মূ্ল্যের কোনও উপহার নিতে হলে সরকারের অনুমোদন বাধ্যতামূলক ছিল। সেটাই এবার বাড়িয়ে পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত করা হল।এবার থেকে এই টাকার বেশি মূল্যের কোনও উপহার নিতে হলে তখন সরকারি অনুমোদন প্রয়োজন। অন্যদিকে, ‘সি’ ক্যাটেগরির কর্মীরা কোনও অনুমোদন ছাড়াই দু’ হাজার টাকা পর্যন্ত আর্থিক মূল্যের উপহার নিতে পারেন।যেখানে এই ঊর্ধ্বসীমা আগে ছিল ৫০০ টাকা। যাতায়াতের খরচ, থাকা-খাওয়া সহ অন্যান্য আর্থিক সুযোগ-সুবিধাও সরকারের এই ‘উপহার’ তালিকার মধ্যে রয়েছে।

যদিও সামাজিক আতিথেয়তাকে কোনওভাবেই ‘উপহার’ হিসেবে গণ্য করা হবে না বলে মন্ত্রকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। পাশাপাশি বিদেশ থেকে উপহার নেওয়ার ক্ষেত্রেও আগের তুলনায় নীতির পরিবর্তন এনেছে কেন্দ্র। তুলে দেওয়া হয়েছে এক হাজার টাকার সর্বোচ্চ সীমাও। তবে এই ঊর্ধ্বসীমাই তুলে দেওয়া হলেও তা বাড়িয়ে কত করা হয়েছে, সে কথা বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি মন্ত্রকের দেওয়া বিজ্ঞপ্তিতে।

তবে শিল্প কিংবা বাণিজ্যিক সংস্থার কাছ থেকে এভাবে সরকারি আধিকারিকদের উপহার গ্রহণের ক্ষেত্রে কিছুটা কড়াকড়ি করেছে মন্ত্রক।কারণ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, সরকারিভাবে কোনও সংস্থার সঙ্গে চুক্তিতে অংশগ্রহণকারী আধিকারিকদের অবশ্যই আতিথেয়তা গ্রহণের বিষয়টি এড়িয়ে চলতে হবে।সেক্ষেত্রে নেওয়া যাবে না কোনও দামী উপহার।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

Tree-bute: রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও