নয়াদিল্লি: পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ঘরছাড়া বাসিন্দাদের জন্য বড় ঘোষণা করল কেন্দ্রীয় সরকার। পাক অধিকৃত কাশ্মীর থেকে পালিয়ে আসা ৫৩০০ পরিবারকে এককালীন সাড়ে ৫ লক্ষ টাকা করে দেওয়ার প্রস্তাব অনুমোদন করেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভা। তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর সাংবাদিক বৈঠকে এই ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, সরকার একটি ঐতিহাসিক ভুল সংশোধন করল।

২০১৬ সালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পাক-অধিকৃত কাশ্মীর থেকে আসা এই নাগরিকদের পুনর্বাসনের ব্যাপারে ঘোষণা করেছিলেন৷ যারা স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ে জম্মু কাশ্মীরে স্থায়ী ভাবে বাস শুরু করেছিল । জাভেড়কর জানিয়েছেন, পাকিস্তানি আগ্রাসনে যে ৫৩০০ পরিবার ঘর ও রাজ্য ছাড়া হয়েছিল এবং পরে আবার রাজ্যে ফিরে যান, তাঁদের জন্য এই আর্থিক প্যাকেজ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জাভড়েকর জানান, ‘‌এর ফলে ওই পরিবারগুলির প্রতি ন্যায় বিচার করা হবে।’‌

আর কিছুদিন পরেই জম্মু-কাশ্মীরে ব্লক উন্নয়ন পরিষদের নির্বাচন। ঠিক তার আগে মোদী সরকারের এই বিশেষ ঘোষণায় অনেকেই অন্য গন্ধও পাচ্ছেন। অবশ্য এই নির্বাচন বয়কট করেছে সিপিআই, কংগ্রেস ও ন্যাশনাল কনফারেন্সের মত দলগুলি। তাঁদের দাবি, এখন সে রাজ্যে ভোট করার মত অবস্থা নেই। কংগ্রেসের বক্তব্য, তাঁদের অধিকাংশ নেতা এখনও গৃহবন্দি থাকায় তাঁরা ভোট ব্যকট করতে বাধ্য হয়েছে।

অন্যদিকে এখনও পুরোপুরি স্বাভাবিক নয় ভূস্বর্গের অবস্থা। ইন্টারনেট ব্যবস্থা এখনও চালু হয়নি উপত্যকায়। তবে আগামীকাল অর্থাৎ ১০ অক্টোবর থেকে পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে কাশ্মীরের দরজা। সেক্ষেত্রে আশা করা যাচ্ছে এরপর থেকেই ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয়ে উঠবে কাশ্মীরের পরিস্থিতি।