নয়াদিল্লি: কম উপসর্গ করোনা রোগীদের বাড়িতে রেখেই চিকিৎসার কথা জানিয়েছিল স্বাস্থ্যমন্ত্রক। এপ্রিল মাসের শেষে এই গাইডলাইন প্রকাশ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রক। তবে করোনার ক্রমবর্ধমান সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে এবার হোম আইসোলেশনে কম উপসর্গ থাকা করোনা রোগীদের চিকিৎসার ক্ষেত্রে নতুন গাইডলাইন বেধে দিল কেন্দ্রীয় সরকার।

নয়া এই গাইডলাইনে বলা হয়েছে, এবার থেকে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকা রোগীদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা যাবে না।

তবে ৬০ বছরের ঊর্ধ্বে কম উপসর্গ থাকা নাগরিকদের ক্ষেত্রে চিকিৎসকের অনুমতি সাপেক্ষে বাড়িতে রেখে চিকিৎসা করানো যাবে। একইভাবে এইচআইভি পজিটিভ ও ক্যানসার রোগীদের ক্ষেত্রেও এই সুবিধা মিলবে।

ফাইল ছবি

উপসর্গহীন করোনা রোগীর সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে। প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন রাজ্য থেকে উপসর্গ না থাকলেও করোনা পজিটিভ হওয়ার রিপোর্ট মিলছে।

এছাড়াও ডায়াবেটিস-সহ একাধিক রোগে আগে থেকে আক্রান্তদের ক্ষেত্রে তাঁদের অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে চিকিৎসা করা বেশি জরুরী। তাঁদের থেকে করোনার সংক্রমণ ছড়ানোর প্রবণতা বেশি বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

করোনায় বাড়িতে রেখে চিকিৎসা নিয়ে কেন্দ্রের নয়া এই গাইডলাইনে আরও বলা হয়েছে, স্বাস্থ্য দফতর থেকে রোজ রোগীর শারীরিক অবস্থার খোঁজ নেওয়া হবে। হোম আইসোলেশনে থাকা ব্যক্তি বা মহিলাদের শারীরিক অবস্থার রেকর্ড কোভিড পোর্টালে আপডেট করতে হবে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ