নয়াদিল্লি: করোনা ভাইরাসের কারণে দেশ জুড়ে চলছে লকডাউন। তবে লক ডাউনের পরেও কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্য হতে পারে ওয়ার্ক ফ্রম হোম। এই মুহূর্তে একাধিক সংস্থা এই নিয়মে কর্মীদের দিয়ে নিজেদের কাজ চালাচ্ছে। যা লকডাউনের পরেও জারি থাকবে বলে মনে করা হচ্ছে। ডিপার্টমেন্ট অফ পার্সোনাল অ্যান্ড ট্রেনিং জানিয়েছে যোগ্য কর্মীদের বছরে ১৫ দিনের জন্য এই সুযোগ দেওয়া হবে। সেই নির্দেশিকার খসড়া বানানো হচ্ছে।

দেশে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারী সংখ্যা প্রায় ৪৮ লক্ষের বেশি। কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, করোনা ভাইরাস রোধের জন্য সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা দরকারী। আর সেই কারণেই কর্মীদের এইভাবে কাজ করতে হচ্ছে। এছাড়া কেন্দ্রীয় মন্ত্রক এবং তার সঙ্গে সহকারী অন্যান্য দফতর যথেষ্ট দায়িত্বের সঙ্গে কাজ করে চলেছেন। এই জাতীয় অভিজ্ঞতা ভারত সরকার এবং সাধারণ মানুষের কাছে প্রথম। সেই কারণেই ভবিষ্যতে এই নীতি মেনে চলতে হবে। লক ডাউনের পরবর্তী পদক্ষেপ এবং সুরক্ষা বিধি নিয়েও ইতিমধ্যে কাজ হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে।

ইতিমধ্যে একাধিক রাজ্যের তরফে এই ভাইরাস রোখার জন্য বেশ কিছু পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়েছে। এছাড়াও কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে তিন জোনে দেশের একাধিক রাজ্যকে ভাগ করা হয়েছে। পাশপাশি প্রশাসনিক কর্তা এবং চিকিৎসকদের জন্য সরকারের তরফে একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

একাধিক দফতরের আধিকারিকেরা পরিস্থিতির দিকে নজর রাকছেন এবং ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে বৈঠক করছেন। ইতিমধ্যে কেন্দ্রের তরফে রাজ্যগুলির জন্য আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের সংশ্লিষ্ট দফতর থেকে প্রয়োজনীয় সাহায্য করা হবে বলেও জানানো হয়েছে।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা