নয়াদিল্লি: করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা দ্রুত হারে করতে রাজ্যগুলিকে নির্দেশ পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। বর্তমানে দেশে যে গতিতে করোনা টেস্ট চলছে তা প্রয়োজনের তুলনায় বেশ কম। কেন্দ্রের আশঙ্কা, যে গতিতে দেশে করোনা ছড়িয়ে পড়ছে তাতে করোনা টেস্ট যদি আরও বেশি করে করা না যায় তবে আক্রান্তদের দ্রুত শনাক্ত করা সম্ভব হবে না। এর জেরে দেশে মারণ করোনার সংক্রমণ আরও ছড়িয়ে পড়বে বলেই আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের।

৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশে মাত্র ৪২,৭৮৮ জনের করোনা পরীক্ষা হয়েছে। যদিও এপ্রিলের শুরু থেকেই পরিস্থিতির গুরুত্ব বিচার করে দেশে করোনা টেস্টের হার আরও বাড়িয়ে দেওয়া হয়। সীমিত টেস্ট কিটেই আরও বেশি করে পরীক্ষা শুরু হয়ে দেশে।

আইএমসিআর-এর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, দেশে এখনও পর্যন্ত মোট ১ লক্ষ ৩০ হাজার স্যাম্পেল টেস্ট করা হয়েছে। এদের মধ্যে থেকে ৫৩৭৪টি স্যাম্পেল পজিটিভ। ১৪ এপ্রিলের মধ্যে রাজ্যগুলিকে নয়া টার্গেট দেওয়া হয়েছে।

রাজ্যগুলিকে করোনা সংক্রমণের পরীক্ষা ডাবল করতে বলা হয়েছে। ১৪ এপ্রিলের মধ্যে সারা দেশে করোনা টেস্টের সংখ্যা আড়াই লক্ষের বেশি করার লক্ষ্যমাত্রা স্বাস্থ্যমন্ত্রকের। ইতিমধ্যেই এব্যাপারে রাজ্যগুলিকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করতে নির্দেশ পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

করোনায় দেশে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াল ৬,৪০০। মৃতের সংখ্যা ১৯৯। যে কোনও মুহূর্তেই ২০০-এর ঘরে গিয়ে উঠতে পারে এই সংখ্যা।

স্বাস্থ্যমন্ত্রক সূত্রে খবর, দেশে মোট করোনা আক্রান্ত ৬৪১২ জন। এদের মধ্যে ৫০৩ জনকে ছুটি দেওয়া হয়েছে বা তাঁরা সেরে উঠেছেন। মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ১৯৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

Tree-bute: রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও