কলকাতা: শুক্রবার রাজ্যে আসছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। মোট ৩২ কোম্পানি বাহিনি আসছে বলে কমিশন সূত্রে কবর। এছাড়াও রাজ্যে রয়েছে তিন কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। রাজ্যে পুরভোটে বাহিনী টহলদারীর কাজ করবে বলে জানা গিয়েছে।

বৃহস্পতিবারই রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সুশান্তরঞ্জন উপাধ্যায় জানান, রাজ্যে নতুন করে বাহিনী আসছে না। উত্তর ২৪ পরগণায় দুই কোম্পানি ও হুগলিতে এক কোম্পানি বাহিনী থাকবে। তবে কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যদিও কেন্দ্রীয় বাহিনী এলে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হতে কতটা সাহায্য হবে, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহলে।  কারণ আগে থেকে ঠিক করা ধাকলে কেন্দ্রীয় বাহিনী কোথায়, কিভাবে কাজ করবে সেই পরিকল্পনা করা থাকত। তবে এবার বাহিনী কাজে লাগানো যাবে কিনা তা নিয়ে মতানৈক্য রয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।