স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: বিরোধীরা একটা ইস্যুতে সবাই এক সুরে। কংগ্রেস বিজেপি ও বাম সকলের একই অভিযোগ তা হলো পঞ্চায়েতের দক্ষিণ দিনাজপুরে পুলিশের সামনেই হয়েছে ভোট লুঠ।

সাধারণ মানুষকে বুথে যেতে না দেওয়া। ভোট দেওয়াকে কেন্দ্র করে প্রাণহানিরও ঘটনা ঘটেছিল। পঞ্চায়েতের সেই ঘটনা গুলি আজও এলাকার মানুষের মনে দগদগে ঘা হয়ে রয়েছে। বিজেপি কংগ্রেস প্রায় সমস্ত দলেরই দাবী প্রতিটি বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করতে হবে।

পাশাপাশি নির্বাচনও বদ্ধপরিকর যে ভোটের দিন মানুষকে পুর্ন নিরাপত্তা দেওয়ার ব্যাপারে। সেই লক্ষ্যে ভোট ঘোষণার দিন থেকেই ভোটারদের সচেতন করতে ও নতুন ভোটারদের মধ্যে ভোটদানে উৎসাহ বৃদ্ধির নানান কর্মসূচি নিয়েছে কমিশন। এরই মাঝে অন্যান্য এলাকার মতো দক্ষিণ দিনাজপুরেও ভোটারদের মধ্যে উৎসাহ ও সাহস যোগাতে শুরু হয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনীর রুট মার্চ।

আরও পড়ুন- নির্বাচন কমিশন আধিকারিকের প্যান্ট খুলে নেওয়ার হুমকি দিলীপের

কখন জেলার পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে। কখনও বা থানার পুলিশ আধিকারিকদের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা হিলি থেকে হরিরামপুর কুমাগঞ্জ তপন থেকে কুশমন্ডি। বিভিন্ন এলাকার গ্রামে গিয়ে সেখানকার সাধারণ মানুষদের সাথে কথা বলছেন ও তাদের মনে সাহস যোগাচ্ছেন।

এব্যাপারে পুলিশ সুপার নগেন্দ্রনাথ ত্রিপাঠী জানিয়েছেন যে প্রতিদিনই সকাল বিকেল এমনকি রাতেও প্রত্যন্ত এলাকা গুলিতে গিয়ে রুট মার্চ করছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। যাতে মানুষ নির্ভয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন।