নয়াদিল্লি: এবার শত্রু সম্পত্তি বেচে আয়ের উৎস খুঁজছে মোদী সরকার। ওই শত্রু সম্পত্তি বেচতে একটি আন্তঃমন্ত্রক গোষ্ঠী গঠন করা হয়েছে।এর ফলে ক্যাবিনেট সচিব রাজিব গৌবার নেতৃত্বে একটি এবং স্বরাষ্ট্র সচিব ও লগ্নি ও সরকারি সম্পত্তি পরিচালনার দায়িত্বে থাকা সচিবের যৌথ নেতৃত্বে এই আন্তঃমন্ত্রক গোষ্ঠী এই কাজের দেখাশুনা করবে।

বর্তমানে ভারতে অবস্থিত প্রায় ৯৪০০টি এমন শত্রু সম্পত্তি বিক্রি করতে উদ্যোগী হয়েছে কেন্দ্র।যা থেকে প্রায় এক লক্ষ কোটি টাকার সংস্থান হতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।

ভারতবর্ষ ছেড়ে যারা পাকিস্তান এবং চিনে চলে গিয়েছেন এবং সে দেশের নাগরিকত্ব গ্রহণ করেছেন তাদের এদেশে পড়ে থাকা জমিজমা ইত্যাদি শত্রু সম্পত্তি হিসেবে ধরা হয়। এমন প্রায় ৯৪০০টি সম্পত্তি চিহ্নিত করা হয়েছে।

এই চিহ্নিত শত্রু সম্পত্তিগুলির মধ্যে পাকিস্তানে চলে গিয়ে সে দেশের নাগরিকত্ব নিয়েছেন এমন লোকেদের সম্পত্তি সংখ্যা ৯২৮০টি। এই সব সম্পত্তি গুলির মধ্যে উত্তরপ্রদেশে ৪৯৯১টি, পশ্চিমবঙ্গে২৭৩৫টি , দিল্লিতে ৪৮৭টি রয়েছে। অন্যদিকে চিনে চলে গিয়ে সে দেশের নাগরিকত্ব নেওয়া লোকেদের সম্পত্তি ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে মেঘালয় (৫৭টি),পশ্চিমবঙ্গ(২৯টি), অসমে(৯টি)।

বর্তমানে মোদি সরকারের আমলে দেশের অর্থনীতি তলানিতে এসে ঠেকেছে। এই ঝিমিয়ে পড়া অর্থনীতিতে রাজকোষের ঘাটতি লাগামছাড়া হয়ে পড়ছে। ফলে অনেকেই মনে করছেন, এই পরিস্থিতিতে সেই সমস্যা সামাল দিতে এই শত্রু সম্পত্তি বিক্রি করাটাই উপায় হিসেবে দেখছে এখন এই সরকার।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা