সুভাষ বৈদ্য,কলকাতা: আলোর উৎসব দেওয়ালিতে পশুদের যাতে দুরবস্থা না-হয়, সে বিষয়ে মানুষকে সচেতন করল কলকাতা পুলিশ৷ তাদের সোশ্যাল মিডিয়ায় পোষ্যর ছবি দিয়ে লিখেছে,দয়া করে দায়িত্বের সঙ্গে উদযাপন করুন, এটি আমাদেরও দেওয়ালি৷ আসল এই কথাগুলো বলছে একটি পোষ্য৷ ছবিতে দেখা যাচ্ছে, একটি কুকুর ভয়ে ব্যগের মধ্যে আশ্রয় নিয়েছে৷ কারণ চারিদিকে তখন চলছে আলোর উৎসব৷

প্রতি বছরই দেওয়ালিতে শব্দ বাজি নিয়ে ভুরি ভুরি অভিযোগ উঠে৷ তাতে শুধু মানুষই নয়, শব্দবাজির দাপটে পশুদেরও শোচনীয় অবস্থা হয়ে ওঠে৷ তার প্রতিবাদে সরব হয়েছে পশুপ্রেমীরা৷ শব্দবাজির বিরুদ্ধে অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে পুলিশ৷ মানুষকে সচেতন করতে গত বছর পুলিশ ও একটি এনজিও-র যৌথ প্রয়াসে মিছিল বেরিয়েছিল৷ স্থানীয় মানুষের সঙ্গে পায়ে পা-মিলিয়ে হেঁটেছিল ২০টি পোষ্য কুকুরও৷ বলা যায়, শব্দবাজির বিরুদ্ধে পথে নেমেছিল ওরাও৷ স্লোগান ছিল আলোর উৎসব হোক, শব্দের নয়৷ সচেতনতার প্রচারে মিছিলে ছিল ব্যানার ও পোস্টার৷

প্রতি বছরই শব্দবাজি নিয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করে প্রশাসন৷ তা স্বত্বেও গত বছর দেদার শব্দ বাজি ফেটেছে৷ শহর ও শহরতলির থেকে অনেক অভিযোগ এসেছিল পুলিশের কাছে৷ অভিযোগ জমা পড়েছে পরিবেশ দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদেও৷ শব্দবাজি নিয়ে এ বছরও নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে৷ তবে শব্দবাজি একেবারেই ফাটবে না, এমন আশ্বাস কেউ দিতে পারেনি৷

পশু প্রেমীদের অভিযোগ, কালিপুজো ও দেওয়ালিতে শব্দ বাজিতে মানুষের পাশাপাশি পশুদের অবস্থা সঙ্গীন হয়ে উঠে৷ অনেকেই আবার রাস্তার পশুদের গায়ে জ্বলন্ত বাজি ছুড়ে দিয়ে আনন্দ পায়৷ কেউ কেউ পথের কুকুরদের লেজে বাজি বেঁধে দিয়েও মজা দেখেন৷ যা মনুষ্যত্বের পরিচয় নয়৷