নয়াদিল্লি: নির্বাচন চলাকালীন এবার করোনা আক্রান্ত হলেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুশীল চন্দ্র। তিনি ছাড়াও নির্বাচন কমিশনার রাজীব কুমারও করোনা পজিটিভ। করোনাকালে নির্বাচনী প্রচারে রাশ টানতে তাঁরাই উদ্যোগ নিয়েছিলেন। নিজেরাও এবার মারণ ভাইরাসে কাবু হলেন।

গোটা দেশে তাণ্ডব চালাচ্ছে করোনার সেকেন্ড ওয়েভ। প্রতিদিন লক্ষ-লক্ষ মানুষ নতুন করে করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যু। একাধিক রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিকাঠামো কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড়িয়ে। দেশের একাধিক রাজ্যের পাশাপাশি বাংলাতেও করোনার বেড়ে চলা সংক্রমণ উদ্বেগ বাড়িয়েছে। বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনে দেদার প্রচার চলার জেরেই সংক্রমণ ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ছে বলে দাবি বিশেষজ্ঞদের একাংশের।

করোনা পরিস্থিতিতে বাংলার নির্বাচনী প্রচারে লাগাম পরানোর ব্যাপারে ব্যবস্থা নেন সদ্য দিন কয়েক আগেই নিযুক্ত দেশের মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুশীল চন্দ্র। দিন কয়েক আগেই সুনীল অরোরার জায়গায় দায়িত্ব নিয়েছেন তিনি। এবার তিনিই করোনায় কাবু। সুশীল চন্দ্র ছাড়াও আরও এক নির্বাচন কমিশনার রাজীব কুমারও করোনা পজিটিভ। করোনার সংক্রমণ রোধে একাধিক ব্যবস্থা নিয়েছে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারগুলি। তবে তা সত্ত্বেও লাগাম পরানো যাচ্ছে না সংক্রমণে। পরপর কয়েকদিনই দেশে ২ লক্ষেরও মানুষ করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন।

মঙ্গলবার সকালে, স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২ লক্ষ ৫৯ হাজার ১৭০ জন। মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৭৬১ জনের। এই নিয়ে এখনও পর্যন্ত দেশে ১ কোটি ৫৩ লক্ষ ২১ হাজার ৮৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। করোনায় দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১ লক্ষ ৮০ হাজার ৫৩০। দেশে অ্যাক্টিভ করোনা কেস ২০ লক্ষ ৩১ হাজার ৯৯৭। দেশজুড়ে চলছে টিকাকরণ প্রক্রিয়া। এখনও পর্যন্ত ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে দেশের ১২ কোটি ৭১ লক্ষ ২৯ হাজার ১১৩ জনকে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.