নয়াদিল্লি: সেন্ট্রাল বোর্ড অব সেকেন্ডারি এডুকেশন ছাত্রদের মধ্যে বন্যজীবন এবং প্রাকৃতিক বৈচিত্র্য সম্পর্কে আগ্রহ তৈরি করতে শুরু করছে একটি কুইজ প্রতিযোগিতা। সিবিএসই ওয়ার্ড ওয়াইড ফান্ড (ডাব্লুডাব্লুএফ) এর সহযোগিতায় ৬ এবং ৯ শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্য চালু করছে “ওয়াইল্ড উইজডম গ্লোবাল চ্যালেঞ্জ” কুইজ প্রতিযোগিতা। বিদ্যালয় ছাত্রদের বন্যজীবন এবং প্রাকৃতিক বৈচিত্র্য সম্পর্কে জ্ঞান বৃদ্ধির জন্য জাতীয় স্তরের কুইজ প্রতিযোগিতার পরীক্ষা নেওয়া হবে। কুইজ প্রতিযোগিতার জন্য সিবিএসই ৫ এপ্রিল থাকে রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে। ছাত্ররা এই কুইজে অংশগ্রহণের জন্য নিজেদের নাম রেজিস্টার করতে পারবে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত। রেজিস্ট্রেশন করবার জন্য আবেদনকারী পড়ুয়াকে অফিশিয়াল ওয়েবসাইট wwfindia.org তে ২০ টাকা দিয়ে নাম নথিভুক্ত করতে হবে।

সিবিএসই আয়োজিত “ওয়াইল্ড উইজডম গ্লোবাল চ্যালেঞ্জ” কুইজ প্রতিযোগিতাটিতে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক স্তরের দুটি বিভাগে ভাগ করা হয়েছে। ক্লাস ৬ থেকে ৯ সকলে পড়ুয়াকে প্রথমে জাতীয় স্তরের কুইজ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে হবে। এর পর্যায়ে উত্তীর্ণ হওয়া প্রতিযোগীরা একমাত্র পৌঁছাতে পারবে দ্বিতীয় অর্থাৎ আন্তর্জাতিক স্তরে। অক্টোবর মাসে শুরু করা হবে জাতীয় স্তরের প্রতিযোগিতা এবং আন্তর্জাতিক স্তরের প্রতিযোগিতা শুরু হবে বছরের শেষ মাসে।

বিশ্বের প্রাকৃতিক বৈচিত্র্যের কুইজ প্রতিযোগিতা নিয়ে সিবিএসই জানিয়েছে, বিশ্বের প্রাকৃতিক বৈচিত্র্যের দিকে ছাত্রেদের উদ্বেগ বোধ তৈরি করা এবং সংরক্ষণের জন্য উদ্বেগ প্রদর্শনের জন্য অনুপ্রাণিত করার লক্ষে এই কুইজের আয়োজন।

২০২০ সালে দেশজুড়ে করোনা ভাইরাসের কারণে জাতীয় কুইজ প্রতিযোগিতা আয়োজন করা হয়েছিল অনলাইনে। আর এবারও করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গের ফলে দেশে ফের এই ভাইরাসে রোগীর সংখ্যা সক্রিয় হওয়ার কারণে এবছরেও আয়োজন করা হচ্ছে অনলাইনে।

সিবিবেসই বোর্ডে কোনও রেকর্ড না পাঠিয়ে আগ্রহী পড়ুয়ারা সরাসরি ডাব্লুডাব্লুএফ-এর সাইটে রেজিস্ট্রার করতে পারবে নাম। এর পাশাপাশি কোনও ছাত্রের অসুবিধা হলে কিংবা কোনও তথ্য জানার জন্য যোগাযোগ করতে পারে ০১১-৪১৫০৪৭৯০ অথবা ৯৯৫৮৯৮২৩৫২ নম্বরে। ছাত্রদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে একটি মেল আইডিও প্রদান করা হয়েছে যা wildwisdom@wwfindia.com।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.