কলকাতা: সারদা,নারদা ও রোজভ্যালি মামলার আইও বদলি৷ কলকাতা অফিস থেকে ৪ তদন্তকারী অফিসারকে ভিন রাজ্যে বদলি করা হয়েছে৷ তবে তাদের জায়গায় কে আসছেন,তা জানা যায়নি৷

সিবিআই সূত্রে খবর, সারদা মামলার আইও তথাগত বর্ধন এবং নারদ মামলার আইও রঞ্জিৎ কুমারকে বদলি রা হয়েছে দিল্লিতে৷ এছাড়া রোজভ্যালি মামলার ২ আইওকে বদলি করা হয়েছে ভুবনেশ্বরে৷ এরা হলেন,ব্রতীন ঘোষাল ও সোজম শেরপা৷ কলকাতা থেকে যে সব তদন্তকারী অফিসারদের ভিন রাজ্যে বদলি করা হয়েছে,তারা দীর্ঘদিন ধরে সারদা, নারদা ও রোজভ্যালি মামলার তদন্ত করে আসছিলেন৷

এর আগে নতুন বছরের শুরুতেই বড়সড় রদবদল হয়েছিল কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআইয়ে৷ কলকাতা রিজিওনে গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকটি বদল করা হয়েছিল৷ তাদের মধ্যে ছিলেন দু’জন এসপি এবং একজন এএসপি পদমর্যাদার অফিসার৷ সেই সময় দেশজুড়ে মোট ১৯ জন আধিকারিককে বদলি করা হয়েছিল৷

সিবিআই জানিয়েছিল, কলকাতায় কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার শাখা থেকে দু’জনকে বদলি করা হয়েছে৷ কলকাতার ইকোনমিক অফেন্স উইংস-৪ এর এসপি পার্থ মুখোপাধ্যায়কে বদলি করা হয়েছে দিল্লি হেড কোয়ার্টারে এআইজি (পলিসি) পদে৷ তাঁর জায়গায় আসেন এসপি পদমর্যাদার শান্তুনু কর৷ তিনি কলকাতাতেই কর্মরত ছিলেন৷

পাশাপাশি এসপি পদমর্যাদার আধিকারিক জয়নারায়ণ রানাকে ভুবনেশ্বর থেকে কলকাতায় আনা হয়েছে। এছাড়াও এএসপি পদমর্যাদার সঞ্জয় সিনহাকে দিল্লি থেকে কলকাতায় নিয়ে আসা হয়৷ সেন্ট্রাল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন (সিবিআই) র দাবি,এটি একটি রুটিন বদলি৷

সিবিআইয়ের দাবি, এই বদলির আগেও সেন্ট্রাল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন চিটফান্ড মামলার তদন্তে তৎপর ছিল,আগামীদিনেও একই তৎপরতা থাকবে৷ কিছুদিন আগে রোজভ্যালি কাণ্ডে কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার গৌতম মোহন চক্রবর্তীকে সিবিআই জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। গৌতম মোহনবাবু দুর্নীতির অভিযোগ পেয়ে কি ব্যবস্থা নিয়েছিলেন সেই ব্যাপারেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় প্রাক্তন এই পুলিশ কর্তাকে । পাশাপাশি তাঁর বয়ানও রেকর্ড করা হয়েছে৷

প্রসঙ্গত, বেআইনি অর্থলগ্নি সংস্থা ‘রোজভ্যালি’র নামে বাজার থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা তোলার দায়ে হাজতবাস করছেন রোজভ্যালির কর্নধার গৌতম কুণ্ডু। অভিযোগ, বাজার থেকে তোলা অর্থ জুয়েলারি সংস্থায় বিনিয়োগ করেছেন তিনি।২০১৯ সালে রোজভ্যালি কাণ্ড নিয়ে প্রথম চার্জশিট জমা দিয়েছিল ইডি। ১৭ হাজার ৫২০ কোটি টাকা প্রতারণা মামলার চার্জশিট জমা পড়েছিল সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে। চার্জশিটে নাম রয়েছে গৌতম কুণ্ডু-র।

অনেকেই মনে করছেন প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার মামলায় যথেষ্ট চাপে সিবিআই। রাজীব কুমার বার বার আদালতের কাছ থেকে রক্ষাকবচ পেয়ে যাচ্ছেন৷ যদিও তাকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। নতুন বছরের জানুয়ারির মাঝামাঝি ওই মামলার শুনানি হওয়ার কথা সুপ্রিম কোর্টে।