সুভাষ বৈদ্য, কলকাতা: সারদা-মামলায় চাঞ্চল্যকর মোড়। সারদায় একাধিক তদন্তকারী আধিকারিককে তলব করল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা (সিবিআই)৷ বুধবারই তাঁদেরকে সিজিও কমপ্লেক্স অর্থাৎ সিবিআই দফতরে হাজিরার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে রয়েছেন আইপিএস অফিসার অর্নব ঘোষ৷ যিনি কিনা তৎকালীন সিটের প্রধান রাজীব কুমারের ঘনিষ্ঠ বলেই পরিচিত। এছাড়াও তৎকালীন রাজ্য পুলিশের সারদার তদন্তকারী অফিসার দিলীপ হাজরাকেও ডাকা হয়েছে৷ এমনটাই সিবিআই সূত্রের খবর৷

প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের গ্রেফতার নিয়ে তৎপর সিবিআই৷ ওই আইপিএস অফিসার কোথায় আছেন তা নিয়ে এখন তোলপাড় রাজ্য৷ একসময়ের দাপুটে অফিসার এখন অন্তরালে৷ তাঁর গ্রেফতারি নিয়ে আইনি পরামর্শ নিচ্ছেন সিবিআই অফিসাররা৷ মঙ্গলবার কলকাতায় আসেন সিবিআই এর যুগ্ম ডিরেক্টর পঙ্কজ শ্রীবাস্তব। তিঁনি সিজিও কমপ্লেক্সের সিবিআই দফতরে এসে এখানকার কর্মরত অফিসারদের সঙ্গে বৈঠক করেন৷

বৈঠক শেষে বেরিয়ে যাওয়ার সময় তিনি সংবাদ মাধ্যমের প্রশ্নের উত্তরে ক্যামেরার সামনে কিছু বলতে চাননি৷ শুধু বললেন, যা বলার দিল্লির হেড অফিস থেকে বলবে৷ তবুও গাড়িতে উঠতে উঠতে জানান, কয়েকজন পুলিশ অফিসারকে ডাকা হয়েছে৷ বিধাননগরের প্রাক্তন গোয়েন্দা প্রধান অর্ণব ঘোষকে ডাকা হয়েছে কিনা সে বিষয় তিনি মুখ খুলেননি৷

উল্লেখ্য, সারদা মামলায় তৎকালীন বিধাননগরের গোয়েন্দা প্রধান ছিলেন অর্ণব ঘোষ। এর আগেও তাঁকে সিবিআই নোটিস পাঠিয়ে তলব করেছিল৷ কিন্তু সেসময় তিনি গরহাজির ছিলেন৷ একইসঙ্গে তলব করা হয়েছিল দিলীপ হাজরা, শঙ্কর ভট্টাচার্য, প্রভাকর নাগ নামে তিন অফিসারকেও। এঁরা সবাই সুদীপ্ত সেন এবং দেবযানী মুখোপাধ্যায়দের জিজ্ঞাসাবাদে যুক্ত ছিলেন৷

মঙ্গলবার সকালে, সারদা কাণ্ডের প্রথম তদন্তকারী অফিসার, প্রভাকর নাথকে জিজ্ঞাসাবাদ করে সিবিআই৷ রাজ্য সরকার সারদা কাণ্ডে যখন সিট গঠন করে, তখন প্রথম তদন্তকারী অফিসার ছিলেন তিঁনি৷ মঙ্গলবার সকালে ঘন্টাখানের তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়৷ তারপর তিঁনি সিবিআই দফতর থেকে বেরিয়ে যান৷ ফের দুপুরে তিনি সিবিআই দফতরে আসেন৷ এবং দ্বিতীয়বার তাকে বেশ কয়েক ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়৷ সকালে কোনও নথি না নিয়ে আসলেও বিকালে কিছু নথি সিবিআইকে দিয়েছেন বলে খবর৷

এদিন নবান্ন থেকে যে নির্দেশিকা বের হয়েছে তাতে অর্ণব ঘোষকে এস এস সিআইডি পদ দেওয়া হয়েছে৷ এর আগে তিঁনি মালদার পুলিশ সুপার ছিলেন৷ এরপর তাঁকে সেকেন্ড ব্যাটেলিয়নে পাঠানো হয়। এবার তাঁকে ভবানী ভবনে নিয়ে আসা হল৷ অন্যদিকে আইপিএস রাজীব কুমারকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক থেকে অব্যাহতি দেওয়ার জন্য রাজ্য সরকার চিঠি পাঠিয়েছে। চিঠিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রককে জানানো হয়েছে, রাজীব কুমারকে এডিজি-সিআইডি পদে বহাল করতে চায় রাজ্য।