নয়াদিল্লি: কেন্দ্রীয় তদন্ত ব্যুরো (সিবিআই) এবার আইসিআইসিআই ব্যাংকের প্রাক্তন প্রধান চন্দা কোছারের বিরুদ্ধে মামলা করল৷ পাশাপাশি সিবিআই তাঁর স্বামী দীপক কোছার এবং ভিডিওকন কর্তা বেণুগোপাল ধূতের বিরুদ্ধেও মামলা করেছে ২০১২ সালে বেআইনি ভাবে ঋণ অনুমোদন করার অভিযোগে ৷ ওইসময় চন্দা কোছার ছিলেন আইসিআইসিআই ব্যাংকের প্রধান ৷ এই মামলার প্রেক্ষিতে ভিডিওকনের সদর দফতর মুম্বই এবং আওরঙ্গাবাদে বৃহস্পতিবার তল্লাসি চালায়৷

প্রসঙ্গত অভিযোগ উঠেছে ভিডিওকনকে ৩২৫০ কোটি টাকার ঋণ অনুমোদন করে আইসিআইসিআই ব্যাংক যাতে স্বার্থগত সংঘাত রয়েছে৷ ২০১২ সালে ২০টি ব্যাংকের কনসোট্রিয়াম যে ৪০,০০০ কোটি টাকা ঋণ দিয়েছিল এটা তারই অংশ৷

অভিযোগ ২০১০ সালে বেণুগোপাল ধূত ৬৪ কোটি টাকা দিয়ে পুরোপুরি মালিকানাধীন নিউপাওয়ায় রিনিওবেলস প্রাইভেট লিমিটেড নামে সংস্থা গড়েন দীপক কোছার এবং তাঁর দুই আত্মীয়কে সঙ্গে নিয়ে৷ তাছাড়া ওই ঋণ নেওয়ার ছয় মাসের মধ্যেই ৯ লক্ষ টাকায় বেণু গোপাল ধূত তার মালিকানা হস্তান্তরিত করেন একটি ট্রাস্টের কাছে যার মালিক দীপক কোছার৷

এদিকে ভিডিয়োকন গোষ্ঠীকে ৩২৫০ কোটি টাকার ঋণ পাইয়ে দেওয়ার মাধ্যমে তার পরিবারের লোকেরা সুবিধা নিয়েছেন বলে চন্দা কোছারের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠায় তাঁকে অনির্দিষ্টকালের কালের জন্য ছুটিতে যেতে বলে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ৷ পাশপাশি শুরু হয় চন্দার বিরুদ্ধে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের অভ্যন্তরীণ তদন্ত । সেই তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাঁকে ছুটিতে থাকতে বলা হয়েছিল। সেই সময় তাঁর অনুপস্থিতিতে ব্যাংকের যাবতীয় কাজকর্ম সামলাবেন সন্দীপ বক্সী৷ তারপরে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ বিবৃতি দিয়ে জানায়, আইসিআইসিআই প্রুডেন্সিয়াল লাইফ ইনস্যুরেন্স-এর সিইও সন্দীপ বক্সীকে পাঁচ বছরের জন্য সংস্থার সিওও পদে নিয়ে আসার কথা ।