পাটনা: পশুখাদ্য কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত হয়ে জেলে লালুপ্রসাদ যাদব৷ এবার আরও এক কেলেঙ্কারিতে তাঁর স্ত্রী তথা বিহারের অপর প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে জেরা করল সিবিআই৷ বিপুল অংকের আইআরসিটিসি টেন্ডার দুর্নীতির অভিযোগে রাবড়ি দেবীর পাটনার বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়৷

জানা গিয়েছে, তল্লাশির সময় সিবিআই গোয়েন্দারা লাগাতার জেরা করেছেন লালু-রাবড়ির পুত্র তথা বিহারের প্রাক্তন উপমুখ্যমন্ত্রী তেজস্বী যাদবকে৷ তদন্তে উঠে এসেছে, লালুপ্রসাদ যাদব রেলমন্ত্রী থাকাকালীন আইআরসিটিসি-র টেন্ডার অবৈধভাবে কয়েকটি গোষ্ঠীকে পাইয়ে দেওয়া হয়েছিল৷ তদন্ত শুরু হওয়ার পর থেকে রাবড়ি দেবী ধরাছোঁয়ার বাইরেই ছিলেন৷

এদিকে বহু চর্চিত পশুখাদ্য কেলেঙ্কারি মামলায় জেল হয়েছে লালুর৷ যদিও অসুস্থতার কারণে তাঁর চিকিৎসা চলছে নয়াদিল্লির এইমসে৷ পাটনার সংবাদ মাধ্যমে জানাচ্ছে, এমন সময় সিবিআই তদন্ত গতি নিল যখন, লালু-রাবড়ির অপর পুত্র তেজপ্রতাপের বিয়ের ব্যবস্থা নিয়ে পুরো পরিবারে ব্যস্ততা তুঙ্গে৷ তেজপ্রতাপ বিহারের প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী৷ তাঁর সঙ্গে বিয়ে হবে আরজেডি বিধায়ক চন্দ্রিকা রায়ের কন্যার৷

গত বছর সিবিআই এফআইআর দায়ের করে৷ তাতে বলা হয়, আইআরসিটিসি দুর্নীতি ছড়িয়ে আছে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে৷ রাঁচি ও পুরীর কয়েকটি হোটেলে এই দুর্নীতি ধরা পড়েছে৷ লালু প্রসাদ যাদব ২০০৪-২০০৯ সাল পর্যন্ত রেলমন্ত্রী ছিলেন৷ সেই সময় এই টেন্ডার বের হয়েচিল৷ তাতে জড়িত আইআরসিটিসির তৎকালীন নির্দেশক পি কে গোয়েল সহ উচ্চপদস্থ কর্তারা৷

সিবিআইয়ের দাবি, টেন্ডার ইস্যু করার পর লালুপ্রসাদের নির্দেশে সেটা অবৈধভাবে কয়েকজন ঘনিষ্ঠকে পাইয়ে দেওয়া হয়৷ এর জন্য বিপুল ঘুস নেওয়া হয়েছিল৷ পাটনাতে অতি মূল্যবান জমিও কম মূল্যে পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে৷ এসব অভিযোগেই লালুপ্রসাদ যাদবের স্ত্রী তথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে জেরা করা হয়৷