মুম্বই: সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু তদন্ত করছে মুম্বই পৌঁছে গিয়েছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআই। তবে দিল্লি থেকে এসে পৌঁছলেও তাঁদের কোয়ারেন্টাইন করা হবে না বলেই জানিয়েছেন সিভিক বডির এক আধিকারিক।

অগস্টের ঠিক শুরুর দিকে বিহার পুলিশের তরফে তদন্তকারী অফিসারকে কোয়ারেন্টাইন করা হয়েছিল তা নিয়ে ব্যপক সমালোচনার সম্মুখীন হয় মুম্বই সিভিক বডি। ইতিমধ্যেই তদন্তের স্বার্থে মুম্বই পুলিশের সংস্পর্শে এসেছে সিবিআই। সুশান্ত সিং রাজপুতের পোস্টমর্টেম রিপোর্ট যার মধ্যে অন্যতম। মুম্বই পুলিশ জানিয়েছে, এটি স্যুইসাইড।

তবে অভিনেতার পরিবারের তরফে সম্পূর্ণ অভিযোগ আনা হয়েছে প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে। ঘটনার প্রায় দেড় মাস পরে সুশান্তের বাবা কেকে সিং বিহার পুলিশের কাছে রিয়ার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৬, ৩৪১, ৩৪২, ৩৮০, ৪০৬ ও ৪২০ ধারায় তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর করেন সুশান্তের বাবা। এর মধ্য রয়েছে আত্মহত্যার প্ররোচনা, প্ররোচনা, টাকার নয়ছয়-সহ আরও বেশ কয়েকটি অভিযোগ।

বিহার পুলিশের কাছে রেজিস্টার হওয়া এফআইআরটি তুলে দেওয়া হয় সিবিআই এর হাতে। কিন্তু তার পরে অভিযুক্ত তথা সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী সুপ্রিম কোর্টের কাছে এই তদন্তটি বিহার পুলিশের থেকে মুম্বই পুলিশের কাছে স্থানান্তরের দাবিতে পিটিশন করেন। সেই পিটিশনের রায় দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

তবে রিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগের খতিয়ে দেখার আগে সুশান্তমৃত্যুকাণ্ডে খুনের সন্দেহ দূর করতে হবে। এইক্ষেত্রে ব্যবহার হবে ক্রাইম স্পট পরীক্ষাপদ্ধতি এবং ফরেনসিক পরীক্ষা। বিশেষ তদন্তকারী দল এই বিষয়ে টেকনিক্যাল, ফরেনসিক এবং সিবিআইয়ের কো-অরডিনেশন ইউনিটের সাহায্য নেবে। শুক্রবারই মুম্বই পুলিশের অফিসারদের সঙ্গে দেখা করবে সিবিআইয়ের বিশেষ দল।

এই ঘটনায় রাজনৈতিক ইন্ধনের অভিযোগও উঠেছে। তার মাঝেই শুরু হচ্ছে সিবিআই তদন্ত। এনসিপি থেকে শিবসেনা সকলেই তোপ দেগেছেন। অনেকেই সুপ্রিমকোর্টের এই সিদ্ধান্তকে প্রশংসা করে টুইট করেছেন।

বলিউড অভিনেতা অক্ষয় কুমার সুপ্রিম কোর্টের এই সিদ্ধান্তকে কুর্নিশ জানিয়ে টুইট করেছেন, “সুশান্ত সিং রাজপুত এর মৃত্যুর তদন্ত করার দায়িত্ব সুপ্রিমকোর্ট দিল সিবিআইকে। সত্যিটা যেন সামনে আসে।” যদিও এতদিন অক্ষয় কুমার মুখে কুলুপ এঁটেছিলেন। আর তাই নেটিজেনদের ট্রোলিংয়ের মুখেও পড়তে হয় তাঁকে।

অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত প্রথম দিন থেকে সিবিআই তদন্তের দাবিতে সরব হয়েছিলেন। তিনিও টুইট করেছেন, “মানবিকতার জয় হল। সুশান্তের জন্য যারা লড়াই করছেন তাদের অভিনন্দন। সবাই একজোট হওয়া কত বড় ব্যাপার সেই বিষয় এই প্রথম আমার এত শক্তিশালী লাগছে। অসাধারণ।”

সুশান্তের আর এক প্রাক্তন বান্ধবী কৃতি সানন টুইট করেছেন, “গত দুমাস ধরে খুব অস্থির লাগছিল কারন সব কিছু অস্পষ্ট হয়ে যাচ্ছিল। সুশান্তের তদন্ত সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেওয়া সত্যিই কিছুটা আশা দিয়েছে। আশা করছি যে সত্যিটা সামনে আসবে। সবাই যেন বিশ্বাস রাখি। নিজেরা ধারণা বন্ধ করে এবার যেন সিবিআইকে কাজটুকু করতে দিই।”

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।