নয়াদিল্লি: দল তৃণমূল কংগ্রেস বা দলের নেতা-মন্ত্রী নয়, সরাসরি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরিচালিত রাজ্য সরকারকেই কাঠগড়ায় তুলল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। রাজ্য সরকারের কারণেই সারদা সহ অন্যান্য চিট ফান্ড মামলার তদন্ত গতি পাচ্ছে না বলে অভিযোগ করলেন এক সিবিআই কর্তা।

প্রবীণ সিবিআই কর্তার বক্তব্য উধৃত করে এই খবর জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা পিটিআই। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরিচালিত পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার সিবিআইয়ের তদন্তে সহযোগিতা করা তো দূরের কথা উলটে বাধার সৃষ্টি করছে বলে দাবি করেছেন ওই সিবিআই কর্তা। সেই কারণেই দীর্ঘ সময় পার হয়ে গেলেও এখনও চিট ফান্ড মামলায় চার্জশিট দিতে পারেনি সিবিআই।

সারদা মামলার তদন্ত করুক রাজ্য পুলিশ। প্রথম থেকেই এমনটা চেয়েছিলেন মমতা। সেই কারণে সিবিআই রুখতে সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত গিয়েছিল রাজ্য। এতেই প্রায় এক বছর সময় অতিবাহিত হয়ে যায়। অভিযোগ, সেই সমরে মধ্যে নাকি অনেক তথ্য এবং প্রমণ লোপাট করে দেওয়া হয়। এর পিছনে রাজ্য সরকারের প্রত্যক্ষ ভূমিকা ছিল বলে অভিযোগ করে বিরোধী শিবির। ওই সিবিআই কর্তা বলেছেন, “রাজ্য সরকার সারদা কেলেঙ্কারির তদন্তের প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করছে। সরকার প্রশাসনিক সহায়তায় অনেক প্রমাণ নষ্ট করে দিয়েছে।”

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জেনারেল কনসেন্ট তুলে নেওয়ার পরে সিবিআইয়ের তদন্তে মারাত্মক প্রভাব পড়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন ওই সিবিআই কর্তা। সেই কারণে কেবলমাত্র অর্থনৈতিক তদন্তকারী সংস্থাগুলি কেবল কাজ করতে পারছে পশ্চিমবঙ্গে।

এই প্রসঙ্গে গত ২৫ জানুয়ারি ফিল্ম প্রযোজক শ্রীকান্ত মোহতার গ্রেফতারের প্রসঙ্গে টেনে এনেছেন ওই সিবিআই কর্তা। শ্রীকান্তের অফিসে সিবিআই আধিকারিকেরা গেলে সেখানে তাঁদের বাধা দিতে স্থানীয় থানার পুলিশ চলে আসে। এই বিষয়ে সিবিআই কর্তা বলেছেন, “পুলিশের তো ওখানে কোনও কাজ ছিল না। তাহলে পুলিশ কী করছিল?”