কলকাতা: ছবি-কাণ্ডে সুব্রত বক্সি ও ডেরেক ও’ব্রায়েনকে নোটিশ পাঠাল সিবিআই। ছবি বিক্রির টাকা কোথায় খরচ হয়েছে, তার তদন্তে নেমেই তৃণমূলের অ্যাকাউন্ট হোল্ডারদের ডেকে পাঠিয়েছেন তদন্তকারী অফিসাররা।

সূত্রের খবর, এই মাসের তৃতীয় সপ্তাহে সিবিআই দফতরে যেতে বলা হয়েছে ডেরেককে। তিনিও তৃণমূলের অন্যতম অ্যাকাউন্ট হোল্ডার।

জানা গিয়েছে, আর্থিক দুর্ণীতি সামনে আসার সময় এরাই ছিলেন তৃণমূলের অ্যাকাউন্টের দায়িত্বে। তালিকায় রয়েছে আরও দুটি নাম। একজন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রাক্তন আপ্ত সহায়ক মানিক মজুমদার ও অপরজন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। সেইসময় তৃণমূলের অ্যাকাউন্ট সামলাতেন মুকুলও। তাই বিজেপিতে এলেও তৃণমূলের আর্থিক দুর্নীতির তদন্ত থেকে ছাড় পাচ্ছেন না তিনি।

আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রী মমতার প্রাক্তন আপ্ত-সহায়কের বাড়িতে ED-CBI তল্লাশি

এদিকে, বৃহস্পতিবার সকালে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রাক্তন আপ্ত-সহায়ক মানিক মজুমদারের বাড়িতে তল্লাশি চালাতে যান সিবিআই এবং ইডি কর্তারা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আঁকা ছবি বিক্রি এবং তৃণমুল কংগ্রেসের দলীয় তহবিল সংক্রান্ত তথ্য পেতেই এই অভিযান বলে জানা গিয়েছে।মানিকবাবু মমতার প্রাক্তন আপ্ত সহায়ক৷ মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবন কালীঘাটের ৩০বি, হরিশ চ্যাটার্জি স্ট্রিটের কাছাকাছিই থাকেন মানিকবাবু৷

আরও পড়ুন: মুকুলকেও নোটিশ দিল CBI

সিবিআই সূত্রে যা খবর, আগে সিবিআইয়ের ডাক পেলেও দফতরে গিয়ে অফিসারদের সঙ্গে তিনি দেখা করেননি৷ তাঁর বয়সই সিবিআই দফতরে যাওয়ার জন্য বাধা হয়েছে – বারবার বলেছেন মানিক৷ তবে বৃহস্পতিবার সিবিআই এবং ইডি’র অফিসাররা মানিকবাবুর বাড়িতে ঢোকার মুখে স্থানীয় বাসিন্দাদের বিক্ষোভের মুখে পড়েন৷ তল্লাশি কিছুটা অসমাপ্ত রেখেই ফিরে যায় গোয়েন্দারা৷