কলকাতা: ‘পাশে আছি’- ফোনে এই বার্তা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আগেই দিয়েছিলেন আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব৷ প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন মমতার ধর্ণা মঞ্চে উপস্থিত থাকার৷ সেই মতো সোমবার রাতে পাটনা থেকে বিমানে উড়ে আসেন কলকাতায়৷ বিমানবন্দর থেকে সোজা চলে যান মেট্রো চ্যানেলে মমতার ধর্ণা মঞ্চে৷ দিদির প্রতি আকুন্ঠ সমর্থন জানিয়ে বিজেপি তথা মোদী সরকারের বিরুদ্ধে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলি ধ্বংস করার অভিযোগ তোলেন তেজস্বী যাদব৷

লালু পুত্র এদিন জানান, প্রধানমন্ত্রী আসে যায়৷ সংবিধান থেকে যায়৷ সেই সংবিধানকে, সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানকে বাঁচাতে হবে৷ সিবিআইকে বিজেপি তাদের রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করে বলে তোপ দাগেন তেজস্বী৷ তিনি বলেন, ‘‘সিবিআই তো আমার পরিবারকেও ছাড়েনি৷’’ তেজস্বীর সঙ্গে এদিন কলকাতায় আসে ডিএমকে নেত্রী কানিমোঝি৷ তিনি বলেন, ‘‘যেকোনও ভাবে ক্ষমতায় থাকতে চায় বিজেপি৷ বিজেপির ক্ষমতায় ফেরার স্বপ্ন সত্যি হবে না৷ ডিএমকে মমতার পাশে আছে৷ সব বিরোধী দলকে কঠোর হতে হবে৷ সত্যের পথে থাকলে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়া হয়৷’’ দু’জনেই বিজেপির ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে ‘দিদির’ রুখে দাঁড়ানোর ভূয়সী প্রশংসা করেন৷ জানান, একমাত্র দিদিই পারেন এটা করতে৷ তাঁরা সকলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে আছেন৷

নগরপাল রাজীব কুমারের বাড়িতে সিবিআই হানার প্রতিবাদে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে মেট্রো চ্যানেলে ধর্নায় বসেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এই আন্দোলনে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমোর পাশে রয়েছে কংগ্রেস৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফোন করে সেকথা ইতিমধ্যে জানিয়েছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ ইতিমধ্যে মমতাকে সমর্থন জানিয়ে ফোন করেছে ওমর আবদুল্লা, কেজরিওয়াল, চন্দ্রবাবু নাইডু সহ একাধিক মোদী বিরোধী মুখ।