মালদহ: রবিবার রাত ১০টা নাগাদ মালদহ জেলার ইংরেজ বাজার থানার মিলকিতে পুলিশের মারে মৃত আনিউল খান নামে এক মোটর ভ্যান চালক। গ্রামে এই খবর ছড়িয়ে পড়তেই মিলকী পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা। পুলিশের গাড়ি ভাঙ্গচুর। ফাঁড়ি ছেড়ে পালাল পুলিশ। ফাঁড়িতে আগুন ধরিয়ে দিলো উত্তেজিত জনতা। এলাকাতে উত্তজনা। নামানো হলো স্ট্যাকো বাহিনী।

জুয়ার ঠেক থেকে ধৃত ব্যক্তির পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু। আর এই মৃত্যুকে ঘিরে উত্তেজনা। ঘটনায় ইংরেজবাজার থানার অন্তর্গত মিলকি ফাঁড়িতে আগুন ধরিয়ে দিলো উত্তেজিত জনতা।মৃত ব্যক্তিকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা হয় মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। মৃত ব্যাক্তির নাম আইনুল খান(৫০)।

ঘটনায় এলাকায় নামানো হয়েছে বিশাল রেফ বাহিনী। মিল্কি ফারি এলাকায় রয়েছে ব্যাপক উত্তেজনা।ঘটনায় সোমনাথ অধিকারী নামে এক পুলিশ অফিসার আহত হয়। আহত পুলিশ অফিসার বর্তমানে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

ঘটনায় এলাকায় নামানো হয়েছে বিশাল রেফ বাহিনী। মিল্কি ফারি এলাকায় রয়েছে ব্যাপক উত্তেজনা। আহত এক পুলিশ কর্মী সোমনাথ অধিকারী। ঘটনায় এলাকায় নামানো হয়েছে বিশাল রেফ বাহিনী। মিল্কি ফারি এলাকায় রয়েছে ব্যাপক উত্তেজনা।আহত এক পুলিশ কর্মী সোমনাথ অধিকারী। আহত পুলিশ কর্মী মালদা মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন। ঘটনায় সাতজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উত্তেজিত জনতা ফাঁড়ীতে আগুন ধরিয়ে দিলে এখনো পর্যন্ত জানা গিয়েছে প্রচুর নথি পুরিয়ে দেয়। ইতিমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

গরামবাসীদের অভিযোগ কোন অন্যায় করলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে পারে। কিন্তু থানাতে মারধর করা যায় না।আমরা দেখেছি বিগত দিনে জেলার বিভিন্ন প্রান্তে জুয়াসহ অনেক বেআইনি কাজ কর্ম হয় কিন্তু পুলিশ কোন সক্রিয়ভাবে ভূমিকা গ্রহণ করে না। এক্ষেত্রে তারা কি করলো বুঝতে পারছিনা।আমরা দেখেছি এই এলাকার প্রশাসন কারণ বিনা কারণে মানুষদেরকে তুলে নিয়েছে এবং তাদের কাছ থেকে প্রচুর আর্থিক লেনদেন করে। এমনকি বেআইনি গোপন তথ্য দিলেও সেখানে গিয়ে তারা টাকা নিয়ে আসে। যার ফলে কোন কাজে শুরু হয় না। আমরা চাই এখানে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় থাকুক। মানুষ সুষ্ঠুভাবে বসবাস করুক।

মানিকচক বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক মোস্তাকিম আলম বলেন, মৃত্যুর মতো ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক। দোষ করলে তাকে গ্রেফতার করবে এবং আইনি ব্যবস্থা নেবে। কিন্তু তাকে মারধোর করে মেরে ফেলবে এটা কখনোই মেনে নেয়া যায়না। আমরা পরিবারের সঙ্গে দেখা করেছি। সমস্ত বিষয় বিধানসভায় তুলে ধরবো। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে ঘটনার অভিযোগে ৭ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ