চণ্ডীগড়: মুখ্যমন্ত্রিত্বের পদ নিয়ে লোভ নেই তাঁর। কৃষি আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ চালিয়ে যাবেন বলে হুঁশিয়ারি পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংয়ের। মুখ্যমন্ত্রী পদে না থাকলেও কেন্দ্রের বিরুদ্ধে পথে নেমে আন্দোলন চালিয়ে যেতে তাঁর কোনও সমস্যা নেই বলেও জানিয়েছেন কংগ্রেস শাসিত পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং।

কেন্দ্রের নয়া কৃষি আইনের প্রতিবাদে পঞ্জাবের বিভিন্ন এলাকায় আন্দোলন, বিক্ষোভ চলছে। অমৃতসর, জলন্ধর, পাতিয়ালা থেকে শুরু করে একাধিক এলাকায় পথে নেমে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন কৃষকরা। পঞ্জাবজুড়ে ক্রমেই আন্দোলনের সুর আরও চড়া হচ্ছে। কৃষকদের স্বার্থে কৃষি আইনের বিরুদ্ধে একটি বিল পঞ্জাব বিধানসভায় আনতে তৎপর হয়েছে শাসক-শিবির।

পঞ্জাব সরকারের এই পদক্ষেপকে সংবিধান-বিরোধী বলে মন্তব্য করেছে বিজেপি। অবিলম্বে মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিংয়ের পদত্যাগ দাবি করেছে পঞ্জাব বিজেপি নেতৃত্ব। বিরোধীদের লাগাতার সমালোচনার মাঝে এবার মুখ খুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীর আসন ছেড়ে চলে যেতে তিনি ভয় পান না। তবে মুখ্যমন্ত্রী পদে না থাকলেও কৃষকদের স্বার্থে তিনি লড়াইয়ের ময়দানে সব সয় থাকবেন বলে জানিয়েছেন। কেন্দ্রের নয়া আইন কৃষক বিরোধী বলে দাবি বিরোধীদের।

মঙ্গলবার বিজেপিকে দুষে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘আমাকে মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে বরখাস্ত করা হলেও ভয় পাই না। আমাকে কোনওভাবেই ভয় দেখানো যাবে না। ইস্তফা দিতে হলে দেব, কৃষকদের স্বার্থে আন্দোলন চলবে। কৃষকদের জন্য লড়াই চালিয়ে যাব।’’ এদিকে, কৃষক স্বার্থে পঞ্জাব সরকারের নয়া বিল আনার সিদ্ধান্তকে সমর্থন জানিয়েছে আম আদমি পার্টি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।