লখনউ- সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে উত্তাল সারা দেশ। এই আইনের বিরুদ্ধে পথে নেমেছে সারা দেশের মানুষ। উত্তরপ্রদেশের লখনউয়ের রাস্তাতেও নেমেছে প্রতিবাদী মানুষের ঢল। কিন্তু সেই প্রতিবাদ ভয়ঙ্কর রূপ নেয়। পুলিশের দাবি, প্রতিবাদী জনতার তরফ থেকে তাদের দিকে পাথর ছোঁড়া হয়, জ্বালিয়ে দেওয়া হয় বহু গাড়ি, সরকারি বাস ও দমকলের গাড়ি। এই পরিস্থিতি সামাল দিতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এবার এই অবস্থা নিয়ে মুখ খুললেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ।

সংবাদ সংস্থা এএনআই-এর কাছে যোগী বলেন, “আমি এই নিয়ে একটি বৈঠক করব। প্রতিবাদের নামে কেউ হিংসা ছড়াতে পারে না। আমরা এর বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করব। যে সমস্ত দোষীরা ধরা পড়বে তাদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হবে এবং সাধারণ মানুষের সম্পত্তি ধ্বংস করার জন্য তাদের ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।”

প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যেই দিল্লির বেশ কিছু এলাকায় বন্ধ হয়েছে ইন্টারনেট পরিষেবা। প্রতিবাদীদের দাবি, পূর্বপরিকল্পিত এই মিছিলে ব্যাঘাত তৈরি করতেই ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করা হয়েছে। এয়ারটেলের পক্ষ থেকে টুইট করে বলা হয়েছে কলিং ও এসএমএস পরিষেবাও বন্ধ রাখা হয়েছে।

রাজধানীর রাজপথে সকাল থেকেই প্রতিবাদ মিছিল শুরু হওয়ায় রাস্তা জুড়ে জ্যাম শুরু হয়েছে। ফলে অফিসযাত্রীরা বিপাকে পড়েছেন যাতায়াতের পথে। দিল্লি গুরুগ্রাম সীমান্তে এই প্রতিবাদের জেরে অশান্তি সৃষ্টি হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। ফলে লাল কেল্লা এলাকায় জারি হয়েছে ১৪৪ ধারা।

শুধু রাস্তায় যাতায়াতই নয়। মেট্রো চলাচলও ব্যাহত হয়েছে রাজধানীতে। দিল্লি মেট্রো টুইট করে জানিয়েছে, ১৮টি স্টেশনের এন্ট্রি ও এক্সিট গেট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।