অটোয়া: ভারতের বিক্ষোভকারী লক্ষ লক্ষ কৃষকের পাশে এবার দুনিয়ার অন্যতম শক্তিশালী অর্থনীতির দেশ কানাডা। প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো জানিয়েছেন, ভারতের বর্তমান পরিস্থিতি উদ্বেগজনক।

তিনি বলেন, “শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমে অধিকার রক্ষার লড়াইয়ে কানাডা সবসময় পাশে থাকবে।” শিখ ধর্মগুরু গুরু নানকের জন্মদিবস পালনের জন্য একটি অনুষ্ঠানে ফেসবুক লাইভে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী ট্রুডো। তিনি সেখানেই ভারতের কৃষক বিক্ষোভের প্রসঙ্গে উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

কানাডার অর্থনীতির অন্যতম চালিকা শক্তি প্রবাসী ভারতীয়রা। এদের বেশিরভাগ পাঞ্জাব থেকে আসা। ট্রুডোকে সমর্থন এদের বড় অংশের।

মনে করা হচ্ছে, প্রবাসী ও ভারতীয় বংশোদ্ভূত এই পাঞ্জাবী ও শিখ সম্প্রদায়ের ক্ষোভ আঁচ করেই কানাডিয়ান প্রধানমন্ত্রী ভারতের কৃষক বিক্ষোভের প্রতি বার্তা দিয়ে ভারত সরকারের উপর চাপ তৈরি করলেন।

তাঁর বার্তার সাথে আন্তর্জাতিক রূপ পেয়ে গেল ভারতের কৃষক বিক্ষোভ। কৃষি ক্ষেত্র কে বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়ার অভিযোগ করে এবং কৃষি আইনের বাতিল করার দাবিতে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লি ঘিরে ১২ লক্ষের বেশি কৃষক বিক্ষোভে সামিল।

তাদের নেতৃত্বে সারা ভারত কৃষক সভা (এআইকেএস) নেতৃত্বে আরও কয়েকটি কৃষক সংগঠন। ভারতের বিজেপি নেতৃত্বে চলা এনডিএ সরকারের কৃষি নীতির প্রবল বিরোধিতায় আন্তর্জাতিক মহল সরগরম হচ্ছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, “নতুন কৃষি আইনে ভারতীয় কৃষকদের জন্য একটি সুযোগের দরজা খুলে দিয়েছে।” তিনি জানান, কয়েক বছর ধরে কৃষকরা যে দাবিগুলি করে আসছিল, তা শেষ পর্যন্ত পূরণ হয়েছে। এই আইন কৃষকদের ভালোর জন্য।

বিক্ষোভরত লক্ষাধিক কৃষকের দাবি,সরকার নতুন কৃষি নীতি বাতিল করুক ও এমএসপি চালু করুক। তাঁরা আরও জানিয়েছেন, কোনও অবস্থায় ঘেরাও আন্দোলন বন্ধ করা হবে না। আন্দোলনের ফলে প্রবল চাপের মুখে ভারত সরকার।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।