‘Trial balance’,’Journal’, ‘Profit and loss’, ‘Balance Sheet’,’Taxation’ ৷ অ্যাকাউন্টসের এইসমস্ত গুরুগম্ভীর বিষয়ে মগ্ন থেকেও র‍্যাম্পে হাঁটা! তাও আবার মিস ইন্ডিয়ার মতো দেশের সবচেয়ে বড় মঞ্চে৷ অবাক লাগলেও তাইই সত্যি করে তুলেছেন নিকিতা বিশ্ত-kolkata24x7-এর  ‘ক্যাম্পাস ফেস-অফ দ্য উইক’৷ দিল্লির কস্ট অ্যাকাউন্টেন্ট নিকিতা ‘মিস ইন্ডিয়া’-র পাশাপাশি নজর কেড়েছেন এবছরের ‘স্টাইল ডিভা’-র মেগা মঞ্চেও৷

অ্যাকাউন্টস থেকে মার্জার সরণি– দুই দুনিয়ার হরেক কথা বললেন নিকিতা৷ শুনল kolkata24x7

nikhita

Photo Courtesy Femina
Photo Courtesy Femina

kolkata24x7: Hi! নিকিতা কেমন আছেন? আপনি এসপ্তাহের ক্যাম্পাস ফেস অফ দ্য উইক৷ শুনেছি পরিবারের লোকজনের সমর্থন সেভাবে না পেলেও একপ্রকার নিজের জেদেই এই গ্ল্যামার ইন্ডাস্ট্রিতে প্রবেশ আপনার৷ কস্ট অ্যাকাউন্টেন্সি নিয়ে পড়ার সময় হঠাৎ মিস ইন্ডিয়াতে অংশ নেওয়ার কথা মাথায় এল কেন?

Nikita: মিস ইন্ডিয়াতে অংশ নেওয়ার ইচ্ছেটা আমার ছোটবেলার থেকেই৷ আপনি আমার বাড়িতে আসলে আপনাকে আমার ‘স্ক্র্যাপবুকস’ গুলো দেখাব৷ যেখানে গত ১০-১২ বছরের মিস ইন্ডিয়া সম্পর্কিত খবরের কাগজে প্রকাশিত প্রচুর প্রতিবেদন, বিভিন্ন contestants-দের details, ছবি ইত্যাদি আরও অনেককিছুই আজও সংরক্ষণ করা আছে৷ এবছর মিস ইন্ডিয়াতে অংশ নেওয়ার আগে বেশ কয়েকমাস আমি সুপারমডেল নয়নিকা চট্টোপাধ্যায়ের কাছে grooming classes-এও যোগ দিয়েছিলাম৷ নয়নিকা ম্যাম-এর থেকে সত্যি আমি অনেক কিছু শিখেছি৷ যা ভবিষ্যতে আমাকে এই ইন্ডাস্ট্রিতে থাকতে হলে প্রতিটা পদেই সাহায্য করবে ৷

kolkata24x7:আপনার hobbies কী? মিস ইন্ডিয়া, স্টাইল ডিভা-র পর আপনার Future planningsকী?

Nikita: থিয়েটার, অভিনয়, মডেলিং, ট্র্যাভেলিং আমার প্যাশন৷ এছাড়া ইংরেজি পপ গান , ট্রান্স মিউজিক শুনতে এবং সিনেমা দেখতে আমার খুব ভালো লাগে৷ আমি অ্যাকাউন্টসের ছাত্রী৷ বাড়িতে সেভাবে সমর্থন না থাকলেও সবসময়েই চেয়েছি অন্যরকম কিছু করতে ৷ পড়াশুনার মাঝে সময় বের করে থিয়েটারটা বরাবরই চালিয়ে গিয়েছি৷ এবার ইচ্ছে ফিল্মে অভিনয় করার৷ তেলেগু এবং বলিউড মিলিয়ে বেশ কয়েকটি ছবির অফার আমার কাছে ইতিমধ্যেই এসেছে৷ ভবিষ্যতে ইন্ডাস্ট্রিতে নিজেকে একজন প্রতিষ্ঠিত অভিনেত্রী হিসেবে দেখতে চাই৷

Photo- Rahul Dutta & Montu Tomar
Photo- Rahul Dutta & Montu Tomar

kolkata24x7: এসপ্তাহের ক্যাম্পাসের কভার স্টোরি হল ‘ব্র্যান্ড-এ মাতরম’! ব্র্যান্ড বর্তমান সমাজে সেলিব্রিটি থেকে সাধারণ মানুষ, সবার জীবনের সঙ্গেই অঙ্গাঙ্গীভাবে যুক্ত ৷ তোমার কাছে ‘গুড লুকস’ না ‘ব্র্যান্ডেড লুকস’ কোনটা বেশি গুরুত্বপূর্ণ?

Nikita: ব্র্যান্ডেড লুকস একেবারেই না! একজন মানুষের চিন্তাভাবনা, মন এবং সার্বিকভাবে তিনি কতটা গ্রুমড, তার উপরেই তাঁর গোটা পার্সোন্যালিটি প্রকাশ পায়৷ আপনার মাধ্যমেই একটা পোষাকের সৌন্দর্য শোভা পাবে৷ একটা ব্র্যান্ডের মাধ্যমে কখনই আপনার ব্যক্তিত্ব প্রকাশ পায় না৷ ব্র্যান্ডেড জিনিস কোনওদিন না থাকলেও আমি আমার মতো করে পোষাক পরব৷ ব্র্যান্ড হল একটা ‘চিহ্ন’ বা একটা ‘লোগো’৷ যা মানুষেরই তৈরি৷ আমরাই ব্র্যান্ড তৈরি করেছি৷ ব্র্যান্ড কখনও মানুষ তৈরি করতে পারবে না৷

kolkata24x7: আমেরিকার ৫০টি রাজ্যে সম্প্রতি সমকামী বিবাহকে বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে৷ আপনি কী মনে করেন গোটা পৃথিবীতেই ‘same sex marriage’কে বৈধ ঘোষণা করা উচিৎ?

Nikita: অবশ্যই সমকামী বিয়ে বৈধ হওয়া উচিৎ গোটা বিশ্বে৷ কারণ প্রত্যেকের নিজের মতো করে বাঁচার অধিকার রয়েছে এই পৃথিবীতে৷আমরা একটা গণতান্ত্রিক দেশে বাস করি৷ ভারতেও প্রচুর সমকামি মানুষ রয়েছেন৷ অদ্ভূত আইনের প্যাঁচে পড়ে তারা এখন বিপর্যস্ত৷ এদেশেও সমকামি বিয়েকে তাই যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব বৈধ ঘোষণা করা উচিৎ৷ কারণ আমরা যেমন নিজের ইচ্ছে মতো খাওয়াদাওয়া করি, পোষাক পরি৷ তেমনি একইভাবে নিজের মতো করে জীবনসঙ্গী বেছে নেওয়ার অধিকারও আমাদের রয়েছে৷

kolkata24x7: বর্ষাকালে কলকাতা২৪x৭-এর পাঠকদের কী ফ্যাশন টিপস দেবেন আপনি?

PC: Siddharth Sarkar
Photo: Siddharth Sarkar

Nikita: আমার তো মনে হয় এই ভরা বর্ষায় নিজের জিনসগুলোকে আপনারা সবাই আলমারিতে তুলে রাখুন৷ কারণ ভেজা প্যান্ট পরে নিশ্চয় আপনি থাকতে চাইবেন না৷ এই সময়টাই হল শর্টস পরার আদর্শ সময়৷ আপনি যদি শর্টসে কমফর্টেবল না হন, তাহলে এমন কিছু পড়ুন যা হাঁটুর থেকে চার ইঞ্চি উপরে থাকবে৷ যেমন ডিভাইডেড স্কার্ট৷ যদিও সেটা আপনার বডি টাইপের সঙ্গে মানাচ্ছে কি না, সেব্যাপারে আগে নিশ্চিত হয়ে নিন৷ এছাড়া টপ বাছাইয়ের ক্ষেত্রে আমি মনে করি মনসুনে ‘loose fitted tops’, ‘crop tops’ এবং ‘tank tops’ দারুণ৷ এছাড়া ছাতা বাছাই করাও বর্ষাকালে স্টাইলের একটা গুরুত্বপূ্র্ণ বিষয়৷ গরমকালে গাঢ় রঙের ছাতা ব্যবহার করা ভালো৷ কিন্তু বর্ষাকালে চেষ্টা করুণ হাল্কা প্রিন্টেড ছাতা নিয়ে বেরনোর৷ যখন রাস্তায় বেরবেন তখন চামড়ার ব্যাগ না নিয়ে বেরনোটাই ভালো৷

kolkata24x7:শেষ প্রশ্ন, আপনার বর্তমান রিলেশনশিপ স্টেটাসটা কী? এবং আপনার পছন্দের পুরুষের মধ্যে কী কী গুণগুলি থাকাটা একান্তই দরকার বলে আপনি মনে করেন?

Nikita: Ha Ha! ‘I am single and I am happy’. আমি এমন মানুষকেই ডেট করতে চাইব, যে আমাকে সবচেয়ে ভালো বুঝবে৷ আমার emotions-কে respect করবে৷ এমনটা হলে আমিও তাঁর চিন্তাভাবনা এবং আদর্শকে সম্মান করতে পারব৷ এছাড়া যেকোনও রিলেশনশিপের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টা হল ‘trust’৷ আমার উপর অগাধ আস্থা রয়েছে, এমন মানুষকেই আমি আমার জীবনসঙ্গী হিসেবে দেখতে চাই৷

 

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.