কলকাতা: রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে। আশঙ্কাও বাড়ছে হু হু করে। এই পরিস্থিতিতে সব রকমের উদ্যোগ নিচ্ছে রাজ্য সরকার। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে রাস্তায় নেমে বোঝাচ্ছেন মানুষকে।

এবার নিজের দফতরের ফোন নম্বর দিয়ে দিলেন মমতা। কোনও বিপদে পড়লে সরাসরি সেখানে ফোন করা যাবে বলে জানালেন তিনি। তৃণমূলের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে সেই ফোন নম্বর দিয়ে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করলেন তিনি।

সেখানে মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, ‘সারা পৃথিবী এক অভূতপূর্ব পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে চলছে। বাংলাতেও তার প্রভাব পড়বে।’ এমনই আশঙ্কা প্রকাশ করে তিনি আরও একবার চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশদের কুর্নিশ জানিয়েছেন।

লিখেছেন, ‘আপনি নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যে দায়িত্ব ও নিষ্ঠার সঙ্গে রাজ্যের মানুষের সেবা করে চলেছেন, তাকে আমি কুর্নিশ জানাচ্ছি।’

রাজ্যের মানুষের উদ্দেশ্যে তিনি বলেছেন, কারও নিজের বা পরিবাররে যদি প্রয়োজন পড়ে, তাহলে সে যেন মুখ্যমন্ত্রীর দফতরের এক সদস্যের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। ওই সদস্যের ফোন নম্বরও দিয়েছেন তিনি।

এদিকে, মঙ্গলবারই সব বিরোধ ভুলে করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর তৈরি করা তহবিলে ৫ লক্ষ টাকা দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একইসঙ্গে রাজ্যের জন্যও পাঁচ লক্ষ টাকা দিয়েছেন তিনি।

মঙ্গলবার ট্যুইট করে একথা জানিয়েছেন মমতা। তিনি আরও জানিয়েছেন যে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে কোনও বেতন নেন না তিনি। বিধায়ক হিসেবেও নেননি। এমনকি সাত বারের সাংসদ হওয়া সত্বেও পেনশন গ্রহণ করেন না। ছবি এঁকে বা বই লিখে তাঁর যা আয় হয়, সেটাই তাঁর উপার্জন বলে জানিয়েছেন। এমন কথা অবশ্য আগেও বলেছেন মমতা।

করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর পিএম কেয়ার ফান্ডে দেশবাসীকে মুক্ত হস্তে দান করার আবেদন জানিয়েছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। নরেন্দ্র মোদীর ডাকে সাড়া দিয়ে ইতিমধ্যেই সেই ফান্ডে ৫০০ কোটি টাকা দিয়েছে টাটা ট্রাস্ট। এরই পাশাপাশি সেই ফান্ডে ২৫ কোটি টাকা দিয়েছেন অভিনেতা অক্ষয় কুমার।