কলকাতা: করোনার জের। বাতিল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পরীক্ষা। করোনা পরিস্থিতিতে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয় বলে মেনে নিল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। ফলে উচ্চ মাধ্যমিকের পর আরও পরীক্ষা বাতিল করে দেওয়া হল।

করোনা পরিস্থিতিতে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয় বলে সাফ জানিয়ে দিল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়। বৃহস্পতিবার ছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ সিদ্ধান্ত নিয়ামক কমিটি সিন্ডিকেট ভারচুয়াল বৈঠক। আর সেখানেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এদিন উপাচার্য সোনালি চক্রবর্তী বন্দোপাধ্যায় জানান, “করোনা পরিস্থিতিতে ছাত্র-ছাত্রীদের এনে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয়। পূর্ববর্তী নম্বরের ভিত্তিতে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তরের চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের ফল প্রকাশ করা হবে। ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে সবার ফল প্রকাশিত হবে।”

রাজ্যের সব বিশ্ববিদ্যালয়ে সুপারিশ পাঠিয়েছে উচ্চশিক্ষা দফতর। যাতে ফলপ্রকাশের পদ্ধতি বলা হয়েছে। সুপারিশে বলা হয়েছে, স্নাতক স্তরের পরীক্ষার্থীদের ফাইনাল সেমিস্টারের নম্বর ঠিক করা হবে দুই পর্যায়ে। আগের ৫ টি সেমিস্টারের নম্বরের ভিত্তিতে শেষ সেমিস্টারের ৮০ শতাংশ নম্বর দেওয়া হবে। বাকি ২০ শতাংশ নম্বর দেওয়া হবে ইন্টারনাল অ্যাসেসমেন্টের ভিত্তিতে।

স্নাতকোত্তর পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রেও একই রীতি। কোনও পড়ুয়া যদি নিজের প্রাপ্ত নম্বরে সন্তুষ্ট না হন, তাহলে তিনি পরীক্ষা দেওয়ার জন্য আবেদন করতে পারেন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই তাঁর পরীক্ষা নেওয়া হবে। আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে স্নাতক ও স্নাতকোত্তরের চূড়ান্ত বর্ষের ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ