কলকাতা হাই করত বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ পদে কর্মী নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। আগ্রহী প্রার্থীদের দ্রুত আবেদন কোর্টে জানানো হয়েছে। data entry operator, system analyst senior programmer , system manager সহ আরও কয়েকটি পদে কর্মী নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। আবেদনের শেষ তারিখ ২৭.১.২০২১।

জানানো হয়েছে প্রার্থীদের অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ করা হবে। data entry operator পদে নিয়োগের জন্য রয়েছে ১৫ টি শূন্য পদ। প্রার্থীদের মাধ্যমিক পাশ করতে হবে এই পদে আব্দন করতে চাইলে। এছাড়া প্রার্থীদের এক বছরের কম্পিউটারে ডিপ্লোমা করতে হবে।

প্রার্থীদের বয়স ১৮ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে হতে হবে। প্রার্থীদের বেতন মাসিক ২২৭০০ থেকে ৫৮৫০০ হতে হবে। জানানো হয়েছে system analyst পদে নিয়োগের জন্য রয়েছে ৩ টি শূন্য পদ। প্রার্থীদের এই পদে আবেদনের জন্য বি ই বা বি টেক করতে হবে।

এছাড়া জানানো হয়েছে প্রার্থীদের ৫ বছরের কাজের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। প্রার্থীদের বয়স ২৬ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে হতে হবে। প্রার্থীদের মাসিক ৫৬১০০ থেকে ১৪৪৩০০ এর মধ্যে হতে হবে। জানানো হয়েছে senior programmer পদে নিয়োগের জন্য রয়েছে ১ টি শূন্য পদ।

প্রার্থীদের বি ই বা বি টেক করতে হবে। প্রার্থীদের ১০ বছরের কাজের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে বলেও জানানো হয়েছে। প্রার্থীদের বয়স ৩১ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে হতে হবে।

মাসিক ৬৭৩০০ থেকে ১৭৩২০০ এর মধ্যে হতে হবে। প্রার্থীদের নিয়োগ সংক্রান্ত তথ্য জানার জন্য www.calcuttahighcourt.gov.in এই ওয়েবসাইটে চোখ রাখতে হবে।

প্রার্থীদের পরীক্ষার মাধ্যমে বাছাই করা হবে। বিস্তারিত তথ্য পরে জানানো হবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।